অ্যালার্জি থাকলে নেওয়া যাবে না ফাইজারের টিকা

0
290

যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে তাদের ফাইজার-বায়োএনটেকের করোনা ভ্যাকসিন না নেওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাজ্যের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এমএইচআরএ। যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের (এনএইচএস) দুই কর্মী মঙ্গলবার ভ্যাকসিন গ্রহণের পর বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ায় এ পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি।

ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের (এনএইচএস) পরিচালক স্টিফেন পোইজ জানিয়েছেন, টিকা নেওয়ার পর এনএইচএসের দুই কর্মীর শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ার পর পরামর্শে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘নতুন টিকার ক্ষেত্রে সাধারণ বিষয় হওয়ায় যাদের অ্যালার্জি সমস্যা রয়েছে তাদেরকে এমএইচআরএ (নিয়ন্ত্রক) পূর্বসতর্কতা হিসেবে টিকা না নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে। গতকাল অ্যালার্জি রয়েছে এমন দুজনের মধ্যে বিপরীত প্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ার পর এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’

তবে যে দু’জন কর্মীর দেহে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে তারা চিকিৎসা নেওয়ার পর এখন তাদের অবস্থা ভালো আছে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে।

ওই দুই কর্মীর দেহে ‘অ্যানাফাইল্যাকটোয়েড’ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এ ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় শরীরে র‌্যাশ, শ্বাসকষ্ট এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে উচ্চ রক্তচাপের মতো সমস্যা দেখা দেয়। তবে এটা অ্যানাফাইলেক্সিসের মতো গুরুতর নয় বা এ থেকে মৃত্যুর ঝুঁকি তৈরির কোনো সম্ভাবনা নেই বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে এমএইচআরএ একটি নির্দেশনাও জারি করেছে। এমএইচআরএ ফাইজার-বায়োএনটেকের কাছে আরও তথ্য চাইবে বলে জানিয়েছে এবং ফাইজার-বায়োএনটেকও এমএইচআরএ’র পরামর্শকে সমর্থন জানিয়েছে। ফাইজার অবশ্য বলছে, তাদের শেষ ধাপের ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারী স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে অ্যালার্জি আছে এমন কেউ ছিলেন না।

গত সপ্তাহে বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ফাইজার-বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দেয় যুক্তরাজ্য। প্রথম ধাপে ভ্যাকসিন পাচ্ছেন কেয়ার হোম কর্মী, হাসপাতালের রোগী, এনএইচএস স্টাফ ও বয়স্করা।

আর মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন হাসপাতালে কয়েক হাজার মানুষ প্রথমবারের মতো করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজের ইমিউনোলজি বিভাগের বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক পিটার ওপেনশ’ বলেন, ‘কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া ছাড়া এখনও কোনো কার্যকরী ওষুধ আমরা পাইনি। সে কারণে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঝুঁকি এবং সুবিধার বিষয়টিতে আমাদের ভারসাম্য রেখে কাজ করতে হবে।’

এদিকে, যুক্তরাজ্যের পর ফাইজারের ভ্যাকসিনটি আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন দিয়েছে কানাডা। বুধবার (৯ ডিসেম্বর) দেশটির স্বাস্থ্যখাত নিয়ন্ত্রক সংস্থা ‘হেলথ কানাডা’ এই অনুমোদনের কথা জানিয়েছে। কানাডায় ভ্যাকসিনের এই অনুমোদনকে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের একটি মাইলফলক হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

কানাডা সরকার সর্বমোট ২০ মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন ক্রয় করবে দেশটির নাগরিকদের জন্য। এর আগে সোমবার (৭ ডিসেম্বর) দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানিয়েছিলেন, চলতি মাসে ফাইজার থেকে ২ লাখ ৪৯ হাজার ডোজ নেবে কানাডা। যার প্রথম চালান আগামী সপ্তাহে কানাডা পৌঁছানোর কথা রয়েছে বলে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।