আওয়ামী লীগ ছাড়া নির্বাচনের রেজাল্ট কি হবে ইনু জানেন : ওবায়দুল কাদের

0
91

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ ছাড়া নির্বাচন করলে রেজাল্ট কী হবে, তা ইনু সাহেব জানেন। আগে তো টেস্ট করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে বুধবার কুষ্টিয়ায় এক সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতাদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, তাঁরা সংখ্যায় বিপুল না হলেও তাঁদের ছাড়া ‘হাজার বছরেও’ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসতে পারবে না।

জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের এ কথা বললেন।

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, ইনু সাহেব অভিমান, ক্ষোভ থেকে বোমা ফাটিয়েছেন। কেন এ অভিমান? তিনি নিজেও জানেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আলোচনা করা ঠিক নয়। ওনার যা ক্ষোভ আছে, এটা আমরা দলীয় ফোরামে-সরকারি ফোরামে আলাপ করে নেব। চিন্তার কোনো কারণ নেই।’ তিনি বলেন, জাসদ যদি আওয়ামী লীগকে ছাড়া নির্বাচনে যায়, তার ফল কী হবে, তা ইনু নিজেও জানেন।

অনুষ্ঠানে বিএনপির সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দলটি নিজেদের অনুষ্ঠানে ‘মারামারি’ করে বলে তাদের সমাবেশের অনুমতি দিতে পুলিশও ‘ভয় পায়’। বিএনপি নিজেরাই নিজেদের সঙ্গে মারামারি করে, বিশৃঙ্খলা করে সভা-সমাবেশ পণ্ড করে। তাদের অনুমতি দিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য পুলিশকে হিমশিম খেতে হয়।

সরকারের পক্ষ থেকে বিএনপিকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সহযোগিতা করা হচ্ছে দাবি করে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, পুলিশ বিএনপিকে সমাবেশ করার আশ্বাস দিয়েছে, আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমতি তারা পেয়ে যাবে। বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি পেয়েছে, এটাই সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’ বই দুটি বিতরণ উপলক্ষে টিএসসিতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ ইউনেসকোর বিশ্ব ঐতিহ্যের ‘প্রামাণ্য’ শাখায় স্বীকৃতি পাওয়ায় এ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

ছাত্রলীগের অন্তঃকোন্দল ও সংঘর্ষের ঘটনার বিষয়ে বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগের কর্মীসংখ্যা বেড়েছে, কিন্তু গুণগত সমৃদ্ধি হয়নি। গুণগত গভীরতার ঘাটতি আছে।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আবিদ আল হাসান এবং সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।