আবু সাঈদ অপু : 

চাকরি মানেই সোনার হরিন। বিশেষ করে বেকারত্ব কিংবা অভাব ঘোচানোর একটি বড় জায়গা হলো প্রাইভেট সেক্টর কিংবা বেসরকারি চাকরির বাজার। আর এই বাজারে আয়ের পথ খুঁজতে এসে বিব্রতকর পরিস্থিতিসহ নানাবিধ বিড়ম্বনা ও হয়রানীর শিকার হতে হয় নারীদের। এমনকি প্রতারণার ফাঁদে পা দিয়ে অনেকেই হন সর্বশান্ত। সজীব হোসেনের ক্যামেরায় আরও জানাচ্ছেন ।

জীবনে অনেক স্বপ্ন নিয়ে ঢাকা এসেছিলেন এই নারী। বাবা মায়ের ক্ষুধার্থ মুখে তুলে দিতে চেয়েছিলেন দু’মুঠো অন্ন। কিন্তু রাজধানীতে ছুটে এসে গার্মেন্টস্ থেকে শুরু করে অনেক জায়গায় চাকরি খুঁজেছেন। কিন্তু বিড়ম্বিত ভাগ্যে তিনি হয়েছেন লালসার শিকার।

তার মতো অনেকেই চাকরি খুঁজতে গিয়ে এমন ঘটনার শিকার হয়েছেন।

ভুক্তভোগীদের এমন অভিযোগের সত্যতা অনুসন্ধানে মাঠে নামে ঘটনার অন্তরালে টিম। বেসরকারি কিছু প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে গিয়ে এমন হয়রানীর শিকার হতে হচ্ছে। এমনকি কর্তৃপক্ষের নজরে আসতে নৃত্য পরিবেশনও করতে হচ্ছে অভাবের সাথে যুদ্ধ করা এসব নারীর। আর পত্রিকায় লোভনীয় চটকদার বিজ্ঞাপনের প্রতারণার ঘটনাতো সবারই জানা।

সমাজের এসব কর্মকান্ডকে কিভাবে দেখছেন সমাজ বিজ্ঞানীরা। আর কেনই বা এসব ঘটছে।

উত্তর খুঁজতে গিয়ে অপরাধ বিশ্লেষকরা দুষলেন আইন প্রয়োগের দুর্বলতাকে। দিয়েছেন কিছু পরামর্শও।

বিস্তারিত ভিডিওতে