আগামীকাল উত্থাপিত হতে যাচ্ছে নতুন অর্থবছরের বাজেট

0
193

শারমিন আজাদ:

আগামীকাল উত্থাপিত হতে যাচ্ছে নতুন অর্থবছরের বাজেট। বড় অংকের বাজেট উন্নয়নশীল দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে প্রবেশের ক্ষেত্রে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বাজেট বাস্তবায়নই বড় কথা। আর বাজেটের অর্থায়নে রাজস্ব আয়ই হবে বড় টার্গেট।

সেই লক্ষ্য পূরণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। একইসাথে শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ দেয়ারও পরামর্শ তাদের।

বৃহস্পতিবার সংসদের বিবেচনার জন্য ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী আহম মুস্তফা কামাল। এটাই তার প্রথম বাজেট। শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের টানা তৃতীয় মেয়াদে এ বাজেট নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নের প্রতিফলন।

এবারের বাজেটের সম্ভাব্য আকার হতে পারে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। যা জিডিপির ১৮ দশমিক ১ শতাংশ। এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ধরা হতে পারে ৮ শতাংশের বেশি। এতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন হবে ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকার। এডিপিতে বেশি গুরুত্ব পাবে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

আগামী অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হতে পারে ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। তবে বৈদেশিক সহায়তা এবারও ৫ শতাংশের মধ্যে রাখা হবে। আগামী অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি হতে পারে ১ লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ কোটি টাকা।

আসন্ন বাজেটে ব্যয়ের পরিমাণ বাড়ছে ৫৮ হাজার ৬১৭ কোটি টাকা। সে হিসাবে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটের চেয়ে নয়া বাজেট ১২ দশমিক ৬ শতাংশ বেশি।

বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা ভোগকারীর সংখ্যা ১৩ লাখ বাড়িয়ে ৮৭ লাখ করা হবে। এছাড়া শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ থাকবে বেশি। একই সাথে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে উন্নয়ন বাজেটেও।