আজানের পর জাতীয় সঙ্গীত নিয়ে মুখ খুললেন সনু নিগাম

0
74

আজানের পর এবার সিনেমা হলে জাতীয় সঙ্গীত চালানো নিয়ে সোচ্চার হলেন ভারতীয় জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী সনু নিগাম। এই শিল্পী সিনেমা হলে জাতীয় সঙ্গীত বাজানোই উচিত নয় বলে মনে করেন। যদি তা বাজানো হয়, তবে অবশ্যই মানুষকে উঠে দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা জানানোর তাগিদ দেন তিনি। এটি মানুষের ইচ্ছার বিরুদ্ধ কাজ বলেও মনে করেন সনু।

এই ঘটনার একদিন আগেই ভারতের সুপ্রিম কোর্ট হলে জাতীয় সঙ্গীত যাতে না বাজানো হয় তা নিয়ে কেন্দ্রকে পুনরায় বিবেচনা করার পরামর্শ দিয়েছে। ৩০ নভেম্বর ২০১৬ সালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মোতাবেক সিনেমা হলে জাতীয় সঙ্গীত বাজানো বাধ্যতামূলক করার বিধান চালু হয়।

কোনও ভারতীয়য়ে স্বদেশে থেকে দেশপ্রেম দেখানোর প্রয়োজন নেই বলে মনে করেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডি.‌ওয়াই চন্দ্রচূড়। সোমবার ডি ওয়াই মত দিয়ে বলেন, ‘‌এমন কোনও বাধ্যতামূলক নেই যে সিনেমা হলে জাতীয় সঙ্গীত চললে উঠে দাঁড়াতে হবে। সিনেমা হলের মত বিনোদনমূলক জায়গায় জাতীয় সঙ্গীত বাজানোর কোনও প্রয়োজন নেই বলেও মত দেন এই বিচারপতি।

হলে জাতীয় সঙ্গীত চললে সাধারণ মানুষকে দাঁড়াতেই হবে এমন নিয়মের বিপক্ষে অবস্থান নেন সনু নিগাম। তবে সিনেমা হলের মতো জায়গায় জাতীয় সঙ্গীত না বাজানোর পক্ষেই অবস্থান নেন সনু। জাতীয় সঙ্গীত খুবই সম্মানজনক এবং সংবেদনশীল। এমন সম্মানজনক বিষয়টি তুচ্ছ–তাচ্ছিল্য করে সিনেমা হলে  কেন বাজানো হচ্ছে? প্রশ্ন রাখেন সনু।

আমি যদি আমার জাতীয় সঙ্গীতকে ভালোবাসি তবে তা কেন সিনেমা হলে বাজানোর প্রয়োজন যেখানে মানুষ সিনেমা দেখতে আসেন এবং খুবই কষ্ট করে তাঁরা উঠে দাঁড়ান। তাই আমার মতে জাতীয় সঙ্গীত এর মতো সংবেদনশীল বিষয়ে সিনেমা হলে বাজানোর রীতি এখানেই স্থগিত থাকুক বলে যোগ করেন জনপ্রিয় এই সঙ্গীত শিল্পী।

তবে আমার এমটাও মনে হয় যদি জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হয় তবে আমার উঠে দাঁড়ানো উচিত। এটা যে ভারতের ক্ষেত্রে তা নয় । যে কোনো জাতীয় সঙ্গীতের ক্ষেত্রেই সমানভাবে শ্রদ্ধা জানানোর প্রয়োজন বলে গুরুত্বারোপ করেন সনু নিগাম।  ‌