আত্মসমর্পণের পর খালেদা জিয়ার জামিন মঞ্জুর; ১৯, ২০ ও ২১ ডিসেম্বর যুক্তিতর্ক

0
111

জিয়া অরফানেস্ট ট্রাষ্ট দুর্নীতি মামলায় বেগম খালেদা জিয়ার জামিন মঞ্জুর করে আগামী ১৯ ডিসেম্বর যুক্তি তর্কের জন্যে পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন আদালত। এর আগে রাজধানীর বকশি বাজার বিশেষ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করেন তিনি।

এর পর আত্মপক্ষ সমর্থক করে বক্তব্য দেয়ারও সুযোগ দেয়া হয়। এ সময় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পদে থাকাকালে ক্ষমতার অপব্যবহার কিংম্বা পদে থেকে অন্যায় প্রভাব খাটাননি বলে আদালতের কাছে দাবী করেন বেগম খালেদা জিয়া।

হরতালের কারন দেখিয়ে হাজির না হওয়ায় গত ৩০ নভেম্বর তার জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিলেন আদালত।

সকাল ১১ টা ১০ মিনিটে পুরনো ঢাকায় সরকারী আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে আসেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।

দিনটি ধার্য ছিলো জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দূর্নীতি মামলার যুক্তি তর্ক উপাস্থাপনের। কিন্তু খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা থাকায় জামিনের আবেদন এবং খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেয়ারও আবেদন করেন তার আইনজিবিরা ।

উভয় পক্ষের শুনানী শেষে বিশেষ আদালতের বিচারক আসামি পক্ষের আবেদন মঞ্জুর করেন। প্রায় আড়াই ঘন্টা আত্মপক্ষ সমর্থনে কথা বলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন। বেলা পৌনে তিনটায় আদালত প্রঙ্গণ ত্যাগ করেন তিনি।

মামলার বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন তার আইনজীবীরা। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এই মামলায় খালেদা জিয়াকে জরানো হয়েছে বলেও দাবী তার আইনজীবীদের।

খালেদা জিয়ার পক্ষের আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদ, এ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় অন্যায় প্রভাব খাটাইনি; আদালতে বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জানিয়েছেন।

তবে আসামী পক্ষের বক্তেব্যের সাথে দ্বিমত পোষণ করেন দুদকের আইনজীবী এ্যাডভোকেট মোশাররফ হোসেন কাজল।

আগামী ১৯, ২০ ও ২১ ডিসেম্বর জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট্র দূর্ণীতি মামলার যুক্তি তর্ক উপাস্থাপনের জণ্য দিন ধার্য করেছে আদালত।