আবারো কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা এবার বিক্ষোভ লস অ্যাঞ্জেলসে

0
353

যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন ও ওরেগন অঙ্গরাজ্যে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ চলার মধ্যেই আরেক কৃষ্ণাঙ্গকে হত্যা করলো লস অ্যাঞ্জেলস শেরিফের দুই সহকারী কর্মকর্তা। কর্তৃপক্ষ বলেছে, যানবাহন বিধি লংঘনের কারণে সাইকেল চালাতে বাধা দিলে ওই ব্যক্তি নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি করেন।

সিবিএস-লস অ্যাঞ্জেলসের প্রতিবেদন অনুসারে, নিহত ওই কৃষ্ণাঙ্গের নাম ডিজন কিজ্জি। পুলিশের গুলিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ২৯ বছর বয়সী এ যুবক। এরপর ঘটনাস্থলে শতাধিক লোক সমবেত হয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে তারা মিছিল নিয়ে শেরিফ স্টেশনের দিকে যান এবং ন্যায়বিচার দাবি করেন। মিছিলে কেউ কেউ চিৎকার করে বলছিল ‘তার নাম বলো’ এবং ‘বিচার নেই, শান্তি নেই’, 

স্থানীয় শেরিফ লেফটেন্যান্ট ব্র্যান্ডন ডিন জানান, ঘটনার দিন দক্ষিণ লস অ্যাঞ্জেলস স্টেশনের দুই ডেপুটি এক সাইকেলআরোহীকে যানবাহন আইন অমান্য করতে দেখে থামানোর চেষ্টা করেন। সেসময় ওই ব্যক্তি সাইকেল রেখে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। শেরিফ সদস্যরা ধরে ফেললে তিনি এক কর্মকর্তার মুখে ঘুষি মারেন এবং কাছে থাকা কিছু কাপড় ফেলে দেন।

ডিন সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘ডেপুটিরা পোশাকের নিচ থেকে পড়া জিনিসটা দেখে বুঝতে পারে সেটা একটা কালো সেমি-অটোমেটিক হ্যান্ডগান, ঠিক ওই সময়ই গুলি করার ঘটনা ঘটে।’ এটা স্পষ্ট নয় যে, গুলি করার সময় ওই ব্যক্তির হাতে বন্দুক ছিল কিনা। ডিন বলেছেন, ডেপুটিদের সঙ্গে এখনও কথা বলেননি তদন্ত কর্মকর্তারা, ‘তার কাছে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল এবং ডেপুটিকে মেরেছিল।’

এদিকে, আরল্যান্ডার গিভেনস নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেছেন, শেরিফ কর্মকর্তাদের বয়ান অনুসারে ওই ব্যক্তি অস্ত্র হাতে ছিলেন না। তাহলে তাকে গুলি করা হলো কেন?

তিনি বলেন, ‘যদি ওই ব্যক্তি নিচু হয়ে সেটি (অস্ত্র) ধরতে যেতেন তখন আলাদা বিষয়। কিন্তু ওটা তো মাটিতে পড়ে ছিল। তার মানে তিনি নিরস্ত্র ছিলেন। তাহলে গুলি করা হলো কেন?’

লেফটেন্যান্ট ডিন জানিয়েছেন, তদন্তকারীদের সঙ্গে এখনও প্রত্যক্ষদর্শীদের কথা হয়নি বা হাতে কোনও ভিডিও ফুটেজও আসেনি। তবে তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত সত্য উদঘাটন করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন এ কর্মকর্তা।