আমূল পরিবর্তনের অপেক্ষায় রাজধানীবাসী (ভিডিও)

0
128

রাকিব হাসান : রাজধানী ঢাকায় নির্মিতব্য উড়াল রেল ব্যবস্থার নাম ঢাকা মেট্রোরেল। ২২ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটিতে ৭৫ শতাংশ ঋন সহায়তা দিচ্ছে জাপান। এর মধ্যে উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশের কাজ ২০১৯ সালে শেষ হলেও আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশটি শেষ হতে সময় লাগবে ২০২১ সাল পর্যন্ত।

রাজধানীতে যানজট নিরসন এবং যাতায়াত আরামদায়ক, দ্রুতততর ও নির্বিঘ্ন করতে ২০১২ সালে নেয়া হয় মেট্রোরেল প্রকল্প। প্রকল্পে ২৪ সেট ট্রেনের প্রত্যেকটিতে থাকবে ৬টি করে কার। ঘন্টায় ১শ কিলোমিটার গতিতে ছুটবে যাত্রী নিয়ে। মেট্রোরেল লাইন-৬ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ এগিয়ে চলছে দ্রুত গতিতে ।

উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার লাইনে ১৬টি ষ্টেশন থেকে চার মিনিট পরপর ১ হাজার ৮০০ যাত্রী নিয়ে চলবে মেট্রোরেল। ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের নির্মান কাজ হচ্ছে দুটি ধাপে। উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশ প্যাকেজ-৩ ও ৪ এর আওতায়। দৈর্ঘ ১১ দশমিক ৭-৩ কিলোমিটার।

প্যাকেজ-৮ এর আওতায় এগিয়ে চলছে রেলকোচ ও ডিপো ইকুইপমেন্ট সংগ্রহের কাজ। চূড়ান্ত করা হয়েছে বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেলের এয়ার কন্ডিশন, ব্রেক ও ট্রেন ইনফরমেশনের কাজ।

উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত উড়ালপথ ও স্টেশন নির্মাণ চলতি মাসে সম্পন্ন করে এই অংশটুকু নগরবাসীর জন্য খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা থাকলেও সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে কর্র্তৃপক্ষ।

দীর্ঘস্থায়ী স্বস্তির জন্য সাময়িক দুর্ভোগ মেনে নিতে রাজধানী বাসীর প্রতি আহবান জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মেট্রোরেল চালু হলে রাজধানীর যোগাযোগ ব্যবস্থায় আমুল পরিবর্তন আসবে বলে মনে করছেন বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ।