আল কায়েদার জ্যেষ্ঠ নেতা আফগানিস্তানে নিহত

0
212

মিসরীয় বংশোদ্ভূত আল কায়েদার জ্যেষ্ঠ নেতা আবু মুহসিন আল মাসরি আফগানিস্তানে নিহত হয়েছেন। গজনি প্রদেশে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর এক অভিযানে তিনি নিহত হন।

শনিবার রাতে টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে আফগানিস্তানের ন্যাশনাল ডিরেক্টরেট অব সিকিউরিটি (এনডিএস) আল মাসরি-র নিহতের খবর নিশ্চিত করেছে। পৃথক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল কাউন্টার-টেররিজম সেন্টারের প্রধান ক্রিস মিলার-ও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেইশনের (এফবিআই) মোস্ট ওয়ান্টেড সন্ত্রাসী তালিকায় আল মাসরির নাম ছিল। ধারণা করা হয়, তিনি আল কায়েদার সেকেন্ড-ইন-কমান্ড ও ভারতীয় উপমহাদেশ অঞ্চলে দলটির প্রধানের দায়িত্বে ছিলেন।

অর্থ ও সরঞ্জাম দিয়ে সন্ত্রাসী সংগঠনকে সহায়তা এবং মার্কিন নাগরিকদের হত্যার অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রে হুশাম আবদ-আল-রাউফ নামেও পরিচিতি আল-মাসরি বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র। এর পর তাকে হত্যার জন নানা অভিযান চলছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল কাউন্টার টেররিজম সেন্টারের প্রধান ক্রিস মিলার এক বিবৃতিতে আল-মাসরি নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘যুদ্ধক্ষেত্র থেকে তার অপসারণ সন্ত্রাসী সংগঠনটির জন্য বড় ধরনের বিপর্যয়। এই সংগঠনটি ক্রমাগতভাবে যুক্তরাষ্ট্র তার অংশীদারদের কৌশলগত ক্ষতি করছিল।’

গত মাসে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, দুইশোর কম আল-কায়েদা সদস্য এখনও আফগানিস্তানে রয়েছে। আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের শিক্ষাকেন্দ্রে আত্মঘাতী বোমা হামলায় ১৮ জন নিহত হওয়ার দিনই আল-মাসরির নিহত হওয়ার কথা ঘোষণা করা হলো। ওই হামলায় আরও ৫৭ জন আহত হয়েছেন।

রণাঙ্গন থেকে আল মাসরি-র অপসারণকে আল কায়েদার জন্য বড় ধরনের বিপর্যয় হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ক্রিস মিলার। তবে তার নিহতের বিষয়ে সরাসরি কোনও মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে এফবিআই।