ইয়াং গ্লোবাল লিডারের তালিকায় বাংলাদেশের মাশরাফি

0
76

সুইস সরকারের তত্ত্বাবধানে সুইজারল্যান্ডের জেনেভা থেকে পরিচালিত সংস্থা ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’-এর বিশ্বসেরা তরুণ নেতার খেতাব পেয়েছেন নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজা।

সারাবিশ্বে ২০২১ সালের জন্য ঘোষিত ১১২ জন তরুণ নেতাদের মধ্যে একজন মাশরাফি। বাংলাদেশ থেকে শুধুমাত্র তিনিই পেয়েছেন এই খেতাব। দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চল থেকে বাছাইকৃত ১০ জন তরুণ নেতার মধ্যে একজন তিনি।

রাজনীতি, ব্যাবসা, একাডেমি, মিডিয়া, চারুকলায় উচ্চ স্বীকৃত ব্যক্তিরা নিজ নিজ ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’ নির্বাচিত হয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে শর্ত একটাই, তাদের বয়স হতে হবে ৪০-র নিচে। বুধবার ঘোষণা করা হয়েছে ১১২ জন তরুণ নেতাদের নিয়ে এবারের ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’ ক্লাস।

যেখানে আফ্রিকা থেকে ৯, আসিয়ান অঞ্চল থেকে ৯, অস্ট্রেলেশিয়া ও ওশেনিয়া থেকে ২, ক্যারিবীয় থেকে ১, ইউরেশিয়া থেকে ২, ইউরোপ থেকে ২৩, গ্রেটার চায়না থেকে ৯, জাপান থেকে ১, কোরিয়া ও উত্তর এশিয়া থেকে ৩, লাতিন আমেরিকা থেকে ৯, মিডল ইস্ট ও উত্তর আফ্রিকা থেকে ১৩, নর্থ আমেরিকা থেকে ২০ ও দক্ষিণ এশিয়া থেকে নির্বাচিত করা হয়েছে ১০ জনকে।

দক্ষিণ এশিয়া থেকে রয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা (বাংলাদেশ), অদিতি আওয়াস্থি (ভারত), শ্রিকান্ত বোল্লা (ভারত), মালেকা বোখারি (পাকিস্তান), নির্ভানা চৌধুরী (নেপাল), গাজাল কালরা (ভারত), শ্রিভার খেরুকা (ভারত), আমেয়া প্রভু (ভারত), হৃদয় রবীন্দ্রনাথ (ভারত) এবং হিতেশ বাধওয়া (ভারত)।

মাশরাফিকে ‘ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’-র এবারের ক্লাসের জন্য নির্বাচিত করে তারা লিখেছে, ‘মাশরাফি বিন মর্তুজা বাংলাদেশের একজন ক্রিকেটার ও ওয়ানডে দলের অধিনায়ক। অবসরের আগে তিনি টি-টোয়েন্টি দলেরও অধিনায়ক ছিলেন। তিনটি বড় আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনালে নেতৃত্ব দিয়েছেন দলকে।

ক্রিকেটের পাশাপাশি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে নিজ জেলা নড়াইলের অগণিত মানুষকে দারিদ্র্যের ফাঁদ থেকে তুলে আনতে সহায়তা করেছেন মাশরাফি। জেলার নাগরিকদের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা প্রদান ও বিশেষায়িত শিক্ষা পদ্ধতি, নৈতিকতা ও মানবিকতার প্রশিক্ষণ, চাকরির সুযোগ তৈরি, সাংস্কৃতিক কার্যক্রম বাড়ানো, ক্রীড়া প্রশিক্ষণ সরবরাহ, চিত্রা নদীর পাড়ে পর্যটন হাব তৈরি, নড়াইলকে তথ্য-যোগাযোগ প্রযুক্তিতে রূপান্তরিতকরণের পাশাপাশি পরিবেশবান্ধব শহরে পরিণত করার লক্ষ্যে গড়ে তুলেছেন নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী চেয়ারম্যান ক্লাউস সোয়াব ২০০৪ সালে বিশ্বকে ক্রমবর্ধমান জটিল ও পরস্পরের উপর নির্ভরশীল সমস্যার মোকাবিলায় সহায়তার জন্য ইয়াং গ্লোবাল লিডারস ফোরাম তৈরি করেছিলেন। তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি হলো, বিশ্বে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে দৃষ্টি, সাহস এবং প্রভাব নিয়ে ব্যতিক্রমী ব্যক্তিদের একটি গতিশীল বিশ্ব সম্প্রদায় তৈরি করা। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের মিশনের সাথে জড়িত ইয়াং গ্লোবাল লিডারস ফোরাম বিশ্ব জনস্বার্থে উদ্যোক্তা প্রদর্শনের জন্য এই অনন্য নেতাদের মাধ্যমে সরকারী-বেসরকারি সহযোগিতা জাগাতে চায়।

উল্লেখ্য, কয়েক বছর আগে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ ইয়াং গ্লোবাল লিডারস তালিকায় স্থান পেয়েছিলেন।