উখিয়ায় বিজিবির সাথে বন্দুকযুদ্ধে ৩ রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত

0
295

কক্সবাজারের উখিয়া সীমান্ত দিয়ে ইয়াবা নিয়ে অনুপ্রবেশকালে বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ভোররাতে উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের তুলাতলী সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে তিন লাখ ইয়াবা, দেশীয় তৈরি দুটি পাইপগান ও ৫ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন, নাইক্যংছড়ির তুমব্রু কোনাপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরের মৃত জেবর মল্লুকের ছেলে নুর আলম (৪৫), বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১, ব্লক-জি/২৯ এর গোরা মিয়ার ছেলে মো. হামিদ (২৫) ও কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-২, ব্লক-ডি/৪ এর বাসিন্দা সৈয়দ হোসেনের ছেলে নাজির হোসেন (২৫)।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি ব্যাটালিয়নের তমব্রু বিওপি’র সদস্যদের কাছে খবর আসে কিছু ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ ইয়াবা নিয়ে মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। তার নেতৃত্বে বিওপি হতে ১০ সদস্যের একটি চৌকস আভিযানিক টহল দল উখিয়ার রাজাপালং তুলাতলী জলিলের গোদা ব্রীজ হতে প্রায় ৫০ গজ পশ্চিমে রাস্তার ঢালুতে অবস্থান নেয়। ভোররাত চারটার দিকে ১০/১২ জনের একটি দল পাহাড়ী এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের দিকে আসতে দেখে তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করা হয়। মুহূর্তে তাদের হাতে থাকা অস্ত্র দিয়ে টহল দলকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ শুরু করে তারা। এ সময় টহল দল আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি করে।

পরে ঘটনাস্থল থেকে এসব অস্ত্র ও ইয়াবাসহ তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় বিজিবি ২ সদস্যও আহত হন। তাদের উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হতে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। উখিয়া থানা পুলিশে খবর দেয়ার পর পুলিশের একটি দল উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরীর পর ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় পৃথক আইনে মামলা দায়ের করা হচ্ছে।