এএফসি কাপের আয়োজক হচ্ছে না বসুন্ধরা কিংস

0
168

এএফসি কাপ আয়োজনের জন্য আবেদন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশের অন্যতম সেরা ক্লাব বসুন্ধরা কিংস। আগামী অক্টোবর মাসে এএফসি কাপের স্থগিত হওয়া ম্যাচ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এএফসি। তবে সেন্ট্রাল ভেন্যুতে ম্যাচগুলো হবে।

ক্লাবের সভাপতি ইমরুল হাসান জানিয়েছেন, ‘আমরা আবেদন করছি না। অতিরিক্ত ঝামেলা মাথায় নেয়ার চেয়ে দলের অনুশীলনে মনসংযোগ দেয়াটাই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ।’

স্থগিত থাকা এএফসি কাপের খেলার নতুন সিডিউল ঘোষণা করেছে এএফসি। ‘ই’ গ্রুপের বাকি ১০ ম্যাচ হবে ২৩, ২৬ , ২৯ অক্টোবর এবং ১ ও ৪ নভেম্বর। প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ। ‘ই’ গ্রুপে আছে তিন দেশের ৪ দল। বাংলাদেশের বসুন্ধরা কিংস, ভারতের চেন্নাই সিটি এফসি এবং মালদ্বীপের টিসি স্পোর্টস ও মাজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন ক্লাব।

শুক্রবার এই চারটি দলকেই এএফসি চিঠি দিয়েছিল, যারা আয়োজন করতে চায় তাদের ১৭ জুলাইর মধ্যে আবেদন করতে হবে। বসুন্ধরা কিংসের আগের থেকেই আয়োজক হওয়ার আগ্রহ কম ছিল। তারপরও এএফসির চিঠি পাওয়ার পর দ্বিধাদ্বন্দ্বে ছিল আবেদন করবে কি না তা নিয়ে। রবিবার রাতে নিজেরা বসে সিদ্ধান্ত নিয়েছে আয়োজক হওয়ার ঝামেলায় তারা যাবে না।

বসুন্ধরা কিংসের প্রেসিডেন্ট ইমরুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা আবেদন করলেই যে এএফসি অনুমোদন দেবে তাও নয়। কারণ, এখানে অনেক বিষয় আছে। প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ। ঢাকায় আমাদের ভেন্যু একটা। আবার গ্রুপের শেষ ম্যাচ দুটি হতে হবে একই সময়। তখন আমরা কিভাবে করব? তাছাড়া ওই সময় করোনাভাইরাসের পরিস্থিতি কেমন থাকে সেটাও বড় একটা বিষয়। দলগুলো তিন দিন আগে আসবে। সবার কভিড-১৯ পরীক্ষা করা, আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা, নিরাপত্তা, চিকিৎসা- অনেক বিষয় জড়িয়ে আছে এখানে। তার চেয়ে ভালো আমরা দলের অনুশীলন নিয়ে মাথা ঘামাই। খেলা যেখানেই হোক খেলে আসব’।

যারাই আয়োজক হওয়ার আবেদন করবে তাদেরকে ২১ জুলাই এএফসি শর্তগুলো পাঠাবে। ২৪ জুলাই সবকিছু পর্যবেক্ষণ করে ৩১ জুলাই এএফসি আয়োজক দেশ নির্ধারণ করবে।

এএফসি কাপে বসুন্ধরা কিংসের ৫টি ম্যাচ বাকি রয়েছে। ২৩ অক্টোবর মাজিয়ার বিরুদ্ধে মাঠে নামবে বসুন্ধরা। এরপর ২৬ অক্টোবর চেন্নাই সিটি এফসি এবং ফিরতি পর্বে ২৯ অক্টোবর আবার চেন্নাইন সিটি এফসির বিরুদ্ধে, ১ নভেম্বর টিসি স্পোর্টস এবং ৪ নভেম্বর মাজিয়া স্পোর্টস অ্যান্ড রিক্রিয়েশন ক্লাবের বিপক্ষে লড়বে বসুন্ধরা।