কিশোরগঞ্জ কারাগারে বন্দিকে পিটিয়ে হত্যা করেছে আরেক বন্দি

0
49

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারে একটি সেলে ধর্ষণ মামলার এক বন্দির হামলায় আব্দুল হাই নামে এক বন্দি নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় জাহাঙ্গির নামে আরও এক বন্দি আহত হয়েছেন। জেল সুপার মো. বজলুর রশিদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার ভোরে কারাগারের একটি সেলে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আব্দুল হাই কিশোরগঞ্জ সদরের শিমুলহাটি গ্রামের ইসরাইল মিয়ার ছেলে। তিনি মাদক মামলার আসামি ছিলেন। তাঁর বাবা ইসরাইল মিয়া নিজেই সংশোধন হওয়ার জন্য প্রায় এক মাস আগে ছেলেকে পুলিশে ধরিয়ে দেন।

অপরদিকে হামলাকারী মো. সাইদু মিয়া তাড়াইল উপজেলার মাইজহাটি গ্রামের বাসিন্দা। শ্যালিকাকে ধর্ষণের পর মেরে ফেলার ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় তিনি ২০১৭ সালের ৭ জুলাই থেকে কারাগারে আছেন।

আহত বন্দি জাহাঙ্গির জেলার নিকলী উপজেলার রোদারপুড্ডা এলাকার শাহজাহানের ছেলে। তাকে হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় আইজি প্রিজন ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পৃথক দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার মো. বজলুর রশিদ জানান, ১১ নম্বর সেলে বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার পাঁচ জন বন্দি রয়েছেন। তারা সবাই কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। আজ ভোর ৪টার দিকে ধর্ষণ মামলার আসামি মো. সাইদু মিয়া সেলের বাথরুমের দরজার কাঠ ভেঙে হাই ও জাহাঙ্গিরকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। তাদেরকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হলে ডাক্তার আব্দুল হাইকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার পর জেলা কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।