কুমিল্লার স্কোর ৬ উইকেটে ১৪৫ রান

0
87

বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়ে কি চমকটাই না দিয়েছিল সিলেট সিক্সার্স। আসলে চমক নয়, সেটি যে নিজেদের সামর্থ্য তার প্রমাণ দিতে রোববার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকেও শুরুতে চেপে ধরেছে নাসির হোসেনের দল।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রোববার পঞ্চম বিপিএলের দ্বিতীয় দিনে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। শুরুতে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে সাবেক চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা। চতুর্থ উইকেট জুটিতে মারলন স্যামুয়েলস ও অলক কাপালির ব্যাটে পথ খুঁজছিল দলটি। কিন্তু দারুণ খেলতে থাকা কাপালিকেও ফিরিয়ে দেয় সিলেট। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে কুমিল্লার স্কোর ৬ উইকেটে ১৪৫ রান।

আগের দিনের মতো এ ম্যাচেও টস জিতলেন সিলেটের অধিনায়ক াসির। তিনি বেছে নেন ফিল্ডিংটাই। জাতীয় দলের দুই ক্রিকেটার লিটন দাস ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে ভালো শুরুই ইঙ্গিত ছিল কুমিল্লার। কিন্তু আগের দিনের মতো এই খেলায়ও বল হাতে বাজিমাত নাসিরের।

ব্যক্তিগত ১২ রানে ইমরুল কায়েসকে বোল্ড করে দলকে এনে দেন প্রথম সাফল্য। এরপর ২১ রান করা লিটন দাস ও ২ রান করা জস বাটলারকে ফিরিয়ে দেন তাইজুল ইসলাম। তাতে ভীষণ চাপে পড়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ৪৪ রানে ৩ উইকেট হারায় কুমিল্লা।

অলক কাপালি উইকেটে এসে ঝড়ো শুরু করেন। ২ ছক্কা ও ১ চারে ১৯ বলে ২৬ রান করেন। তবে ক্রিশমার সান্টোকির বলে সাব্বির হোসেনের হাতে ধরা পড়ে তার সম্ভাবনাময় ইনিংসের মৃত্যু হয়। এই মুহূর্তে স্যামুয়েলসের (৩১) সঙ্গে উইকেটে আছেন মোহাম্মদ নবী (২)।
একাদশ
সিলেট সিক্সার্স : নাসির হোসেন (অধিনায়ক), আন্দ্রে ফ্লেচার, উপুল থারাঙ্গা, সাব্বির রহমান, রস হোয়াইটলি, শুভাগত হোম, নুরুল হাসান সোহান, তাইজুল ইসলাম, আবুল হাসান, লিয়াম প্লানকেট ও ক্রিশমার সান্টোকি।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স : মোহাম্মদ নবী (অধিনায়ক), অলক কাপালি, আল-আমিন হোসেন, ডোয়াইন ব্রাভো, জস বাটলার, ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, আরাফাত সানি, রশিদ খান ও মারলন স্যামুয়েলস।