কৃষকদের প্রণোদনা ও ধান ক্রয়ে জোরদার তদারকির পরামর্শ (ভিডিও)

0
268

মাহবুব সৈকত:

দেশে স্বয়ং সম্পূর্ণতা এসেছে সে সকল খাতে তার মধ্যে অন্যতম কৃষি। খাদ্যে পরিপূর্ণতা এনেছে এদেশের কৃষকরা। তবে বিভিন্ন কারণে সেই কৃষকদের দিন ই কাছে কষ্টে শিষ্টে।

এক দিকে উৎপাদিত ফসল বিক্রি করতে হয় কম মূল্যে অন্য দিকে সেই ফসল ই হাত ঘুড়ে বিক্রি হচ্ছে উচ্চ মূল্যে। মধ্য সত্ত্ব ভোগীরা লাভবান হলেও বঞ্চিত হয় কৃষক।

দিন – রাত পরিশ্রম করলেও স্বজনের মুখে হাসি ফোটানোর মতো সম্বল হয় না। এ অবস্থা থেকে উত্তরণ কোন পথে। কৃষক এবং বিশ্লেষকদের সেই কথাগুলো নিয়েই এবারের আয়োজন। জৈষ্ঠের খরতাপ থেকে রক্ষা পেতে গ্রামের অনেকের মত তিনিও গাছের নিবির ছায়ার আশ্রয়ে।

বুদ্ধিজ্ঞান হওয়ার পর থেকে কৃর্ষিকেই নিয়েছেন পেশা হিসেবে, বোরো ধানের উৎপাদনে আশাবাদি হলেও নিরাশ হয়েছেন স্বল্প মূল্যের কারনে।

মধ্যসত্ত্ব ভোগীরা লাভবান হলেও কষ্টে ফলানো ফসলের দাম না পাওয়ায় হতাশ কৃষক। কম দামে ধান বিক্রি করতে হলেও চালের মূল্য কেন কমছেনা সে প্রশ্নের উত্তর খুজে পান না তারা।

ঝড়- বৃষ্টি কিম্বা বণ্যা- খড়ায় ফসল নষ্ট হয়ে দূর্দিনের মোকাবেলাও জীবনে কম করেন না কৃষক। ঘুড়েও দাড়িয়েছেন বারবার, বোরোতে উৎপাদন খরচ না ওঠায় পরিশোধ হয়নি কর্য, তবুও পরবর্তী ফসল উৎপাদনে দিয়েছেন মনোযোগ।

কষ্টের মাঝেও পরিবারের সদস্যদের মুখে হাসি ফোটাতে চেষ্টার কমতি ছিলোনা ঈদ উৎসবে। কিন্তুু হাসি কি ফুটেছে স্বজনের মুখে। কষ্টে শিষ্টের সংসারে কৃষক পতির দেয়া ঈদ উপহারেই সন্তুষ্ট গৃহিনী, পোলাও কোরমা না হোক, শাক ভাতেই সুখ।

ক্ষতি পোষাতে কৃষকদের আবারও সরাসরি ধান কেনার ঘোষনা দিয়েছে সরকার। এ প্রক্রিয়ায় নজর দারী বাড়ানোর তাগিদ দেন শের ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ সেকান্দার আলী।

দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা এবং সরকারিভাবে ধান চাল মজুদের জন্য পর্যাপ্ত গোডাউন নির্মাণের পরামর্শ দেন শের ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পোস্ট গ্রাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. পরিমল কান্তি বিশ্বাস।

এছাড়া কৃষি এবং কৃষকবান্ধব পরিবেশ তৈরীতে বাস্তবমুখী ও সমন্বিত পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী সবার। তাতে দেশের কাঙ্খিত কৃষির সফলতা আসবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।