কেমন আছে আনিসুল হকের ফেলে যাওয়া নগর ?

0
86

মাহবুব সৈকত : সবুজ এবং পরিছন্ন নগরীর অঙ্গিকার ছিলো ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের, নগরীর গণ পরিবহন ব্যবস্থাকেও করতে চেয়েছিলেন যুগগোপযোগী।

নগর পিতার আসনে বসেই সরকারের সহায়তায় কয়েক দিনের মধ্যে আশার আলো দেখিয়েছিলেন নগরবাসিকে।

কি অবস্থায় রয়েছে তার জনবান্ধব প্রকল্প?

সমস্য চিহ্নিত হয়েছে এবার সমাধান, এমন শ্লোগান নিয়ে নগর পিতা হন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক।
মেয়র হয়ে করে গেছেন অক্লান্ত পরিশ্রম। আনিসুল হকের মৃত্যুর পর কেটে গেছে ৭ মাস। কিন্তু এখন কি অবস্থায় আছে তার করে যাওয়া কাজগুলোর।

চলুন প্রথমেই ঘুরে আসি তেজগাও ট্রাক স্টান্ড থেকে। বহুল আলোচিত এই স্থানটি দখল মুক্ত করে জনগণের যাতায়াতের জন্য সুপ্রশস্ত রাস্তা করা হলেও এখন মাঝে মাঝেই থাকে পরিবহনের দখলে।

পরিবহনের জন্য বিকল্প কোন স্ট্যন্ড না থাকায় এ অবস্থা হয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। এ ব্যাপরে প্রয়াত মেয়র কাজ শুরু করলেও থেমে গেছে সে উদ্যোগ।

মঙ্গলবার সকাল ১১ টা। জনবহুল রাস্তায় দেখা গেল ময়লার স্তুপ। কোন কারনে হয়তো পরিছন্নতায় ব্যত্যয় হয়েছে মনে করে অন্য দিন গুলোতে পরিছন্নতার কি অবস্থা তা দেখতে চায় আমাদের চোখ।
কিন্তু, জানা গেল প্রতিদিনই তেজগাও সাতরাস্তা এলাকায় থাকে এমন চিত্র।

শুধু তাই নয়, আর ময়লা আবর্জনা ফেলার জন্য রাস্তার পাশে স্থাপন করা ছোট ছোট বিনগুলো লাপাত্তা হলেও প্রতিস্থাপনের নেই উদ্যোগ।

এবার রাজধানীর গণপরিবহনের দিকে নজর দেয়া যাক।
সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনার জন্য রাজধানীতে চলাচলকারী গণপরিবহন গুলোকে একিভুত করার উদ্যোগ হাতে নিয়েছিলেন আনিসুল হক। আলোর মুখ দেখেনি সেই কল্যানমুখি উদ্যোগও।

পরিবহন বখাতে সৃংখলা আনতে এ ধরনের পদক্ষেপ জরুরী বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরাও।

যানজটের ভাগান্তি লাঘবে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ন সড়কে ইউলুপ স্থাপন ও যৌক্তিক পদক্ষেপ ছিলো বলে মনে করেন বুয়েটের অধ্যাপক ড. মাহবুবুব আলম তালুকদার ।

ইউলুপের কাজ শুরু হয়েও বন্ধ ছিলো বিগত দিনগুলোতে, কিন্তুু সম্প্রতি প্রতিবন্ধকতা দুর হয়ে এই প্রকল্প আংশিক বাস্তবায়নের সহায়তা মিলছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এ সকল বিষয়ে কথা বলতে যোগযোগ করা হলে এড়িয়ে যান ডিএনসিসির ভারপ্রাপ্ত মেয়র। প্রয়োজনে পাশে না পাওয়ার অভিযোগ করেন ভুক্ত ভোগীরাও।

সবুজ এবং পরিছন্ন ঢাকা গড়তে সমন্বিত উদ্যোগের তাগিদ দিয়েছেন নগর পরিকল্পনা বিদরা।