খাদ্যে সীমাহীন বিষ, রাসায়নিক সহজলভ্যতাও অনেকটা দায়ি (ভিডিও)

0
148

শারমিন আজাদ : বাজারে ভেজাল বা নিম্নমানের পণ্যে গোড়াতেই গলদ। অর্থাৎ প্রক্রিয়াজাতকরণ বা উৎপাদনের সময়ই তাতে মেশানো হচ্ছে বেশি চর্বিজাতীয় পদার্থ কিংবা সীসার মতো রাসায়নিক। রাসায়নিক সহজলভ্যতা নিরসনে উৎপাদকের উপর নজরদারি বাড়ানো জরুরি বলে মনে করছেন বিএসটিআই। এসব খাদ্যপণ্য খেয়ে সহজেই গ্যাস্ট্রোলিভার এর মতো রোগের খপ্পরে পড়ছে সাধারণ মানুষ।

রাজধানীতে বিভিন্ন নিত্যপণ্যেই মিলছে শরীরের জন্য ক্ষতিকর পদার্থ। মান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিএসটিআই এর তথ্যে, মসলায় ক্ষতিকর রং, লাচ্ছা সেমাইয়ে অতিরিক্ত চর্বি, নুডলস এ ক্ষতিকর রাসায়নিক, চিপস এ ও চর্বি, লবনে আয়োডিনের ঘাটতি, তেলবীজে অতিমাত্রার আয়রণ।

অথচ নিয়ম আছে উৎপাদনের সময় এসব পণ্যের গুণাগুণ ঠিক রাখতে হবে। তারপরও অনিয়ম। বিপত্তিটা আসলে কোথায়?

ভোক্তারা মনে করেন, রাসায়নিক পণ্য হাতের নাগালে থাকার কারণেই এই অবস্থা। তবে বিএসটিআই মনে করছে, প্রক্রিয়াজাতকরণের সময়ই কোনোভাবে মেশানো হয়েছে এসব রাসায়নিক। এজন্য ব্যবসায়ীদের নৈতিক মূল্যবোধ জাগিয়ে তোলা ছাড়া আর উপায় নেই বলে মনে করছে সংস্থাটি।

চিকিৎসকরা বলছেন, মান সঠিক না রেখে বাজারে বিক্রি করা এসব খাদ্যপণ্য খেয়ে গ্যাস্ট্রোলিভার থেকে শুরু করে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে মানুষের। এদিকে, বিএসটিআই এর পরীক্ষায় নিম্নমান প্রমাণিত হওয়া পণ্য বাজার থেকে সরিয়ে নিতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে প্রশাসন।