খালেদা জিয়ার জামিন ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করেছেন আপীল বিভাগ

0
48

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় নিম্ন আদালতে দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আদেশ ৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ।

হাইকোর্টের দেয়া জামিন আদেশের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন এবং রাস্ট্রপক্ষের করা আবেদনের শুনানী শেষে এ আদেশ দেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বের ৪ সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ। জামিন আদেশ স্থগিতের পাশাপাশি উভয় পক্ষকে আপিলের সারসংক্ষেপ জমা দেয়ার জন্যেও সময় বেধে দেয় হয়েছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৮ ফেব্রুয়ারী থেকে বিচারিক আদালতের রায়ে ৫ বছরের কারাভোগ করছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।

আসামী পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে হাইকোর্টের শুনানী শেষে নিম্ন আদালত থেকে নথি আসার পর ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে ৪ মাসের আন্তবর্তীকালিন জামিন মঞ্জুর করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম এবং বিচারপতি সাহিদুল করিমে বেঞ্চ।

জামিন স্থগিত চেয়ে ১৩ মার্চ আপিল বিভাগে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ এবং দুদক। এর প্রেক্ষিতে ১৪ মার্চ খালেদা জিয়ার জামিন ১৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করে লিভ টু আপিল করার নির্দেশ দেন চেম্বার জজ।

আদেশ অনুসারে ১৫ মার্চ দুদক এবং রাষ্ট্রপক্ষ লিভ টু আপিল করলে রোববার শুনানী শেষে সোমবার আদেশের দিন ধার্য করেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বের আপিল বিভাগের ৪ বিচারপতির বেঞ্চ।

আদেশ অনুযায়ী ৮ মে পর্যন্ত বেগম খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত করা হয়। এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম জানান আপিল বিভাগের জামিন স্থগিতের কারণে কারাভোগ করতেই হবে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে।
আদেশের অন্যান্য বিষয়ও তুলে ধরেন এটর্নি জেনারেল।

তবে আদেশকে নজিরবিহিন হিসেবে মন্তব্য করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। আদেশের প্রতিক্রিয়ায় মর্মাহত বলেও জানান তারা। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ জানান সরকার যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেন  আইনি লড়াই চালিয়ে যাবেন।