গাজীপুরে গোসল করতে নেমে তিন শিক্ষার্থী নিহত

0
334

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ী বাইমাইল এলাকায় গভীর খালে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ তিন শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

রবিবার দুপুর আড়াইটার দিকে খালে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হন তারা। টঙ্গীর ডুবুরি দল তাঁদের তিনজনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে।

তাঁরা হলেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ী ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কিতাব আলীর ছেলে মো. স্বাধীন (১৭)। এ ছাড়া একই এলাকার কামরুল ইসলামের ছেলে মো. সাব্বির আহমেদ (১৮) ও শহিদুল ইসলামের ছেলে মো. রনি (১৯)। স্বাধীন ও সাব্বির সম্পর্কে মামাতো–ফুফাতো ভাই।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, দুপুর আড়াইটার দিকে বাইমাইল এলাকায় তুরাগ নদের একটি খালে ওই তিন শিক্ষার্থীসহ ১০ জন তরুণ গোসলে নামেন। গোসলের একপর্যায়ে পানির স্রোতে সুজন নামের এক তরুণ ডুবে যাচ্ছিল। এসময় সাব্বির ও রনি তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করে তারাও ডুবে যেতে থাকে। পরে বিপ্লব, স্বাধীন, রানা ও আকাশ তাদের উদ্ধারের চেষ্টা করে। এসময় তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে চারজনকে উদ্ধার করে। তবে রনি, সাব্বির ও স্বাধীন ডুবে যায়। পরে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলকে খবর দেওয়া হলে তারা প্রায় দেড়ঘণ্টার চেষ্টায় সাব্বির, স্বাধীন ও রনির মরদেহ উদ্ধার করে।

তাঁদের মধ্যে স্বাধীন এবার এসএসসি পাস করেছে। এ ছাড়া বাকি দুজন গাজীপুর জেনুইন রেসিডেনসিয়াল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল।

স্থানীয় কাউন্সিলর আব্বাস উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলকে খবর দেওয়া হয়। পরে তারা ওই তিন শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে। একই এলাকার তিন শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি সাইফুল ইসলাম জানান, প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় ওই তিন শিক্ষার্থীকে মৃত অবস্থায় ২৫ ফুট গভীর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তাঁদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

কোনাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এমদাদ হোসেন জানান, আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাঁদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।