গুগল কি বিক্রি করে দিচ্ছে আপনার গোপনীয়তা?

0
57

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি সংস্থার হর্তাকর্তারা দিনের পর দিন বিক্রি করে দিচ্ছেন ইউজারদের ব্যক্তিগত ডেটা। এমনই অভিযোগ করেছে চীনের পেটিএম সংস্থা। এরপরই ভারতের ডিজিটাল পেমেন্ট অ্যাপলিকেশনের গোপনীয়তা নীতিতে বদল এনেছে গুগল। অভিযোগ উঠেছে যে বিজ্ঞাপন এবং অন্যান্য বিষয়ে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে বেঁচে দেওয়া হচ্ছে ব্যবহারকারিদের তথ্য।

এই মূহুর্তে যে বিতর্ক উঠেছে তা হল কিভাবে প্রযুক্তি সংস্থাগুলি ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা ভারত ও বিদেশের বাজারে প্রকাশ্যে নিয়ে আসতে পারে? সম্প্রতি ভারতে নতুন ডেটা প্রোটেকশন আইন বলবৎ করা হয়েছে।

১৩ সেপ্টেম্বর ন্যাশনাল পেমেন্টস কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া (এনপিসিআই) কে দেওয়া এক চিঠিতে পেটিএম অভিযোগ করেছে যে গুগল পে এর গোপনীয়তা নীতিতে পরিষ্কার করে বলা আছে “গ্রাহকদের প্রয়োজনে ব্যবহারকারীর গোপনীয়তাকে অবজ্ঞা করা হবে”।

গুগল পের গোপনীয়তা নীতিতে বলা হয়েছে, ব্যক্তিগত তথ্য প্রয়োজনে “সংগ্রহ, সঞ্চয়, ব্যবহার অথবা প্রকাশ” করা হবে। এছাড়া গুগল পে মাধ্যমে যোগাযোগ করা যাবে। বৃহস্পতিবার আপডেট হওয়ার পর গুগল এর গোপনীয়তা নীতি নিয়ে পর্যালোচনা করে রয়টার্স। তাতে দেখা গেছে “প্রকাশ” শব্দটিকে বাদ দিয়েছে তারা।

গুগল একটি বিবৃতিতে রয়টার্সকে বলেছে যে গ্রাহকদের তাদের এনক্যাশমেন্ট এবং ডেটা ব্যবহারের নীতিটি বোঝার জন্য প্রক্রিয়াটি আরও সহজতর হয়েছে। এই বদল পেটিএম এর এনপিসিআইকে দেওয়া চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে ঘটানো হয়েছে কিনা সে বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তা নিয়ে মন্তব্য করা হয়নি। “এই পরিবর্তনগুলো মাঝেমাঝে করা হয়ে থাকে বলে জানিয়েছেন গুগলের এক মুখপাত্র।

এনপিসিআই প্রধান, দিলীপ আসবে, যিনি ভারতে পেমেন্ট সার্ভিস তত্ত্বাবধান করেন, তিনিও এ ব্যাপারে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেন। চীনের আলিবাবা এবং জাপানের সফটব্যাঙ্কের সাহায্যপ্রাপ্ত সংস্থা পেটিএমও এ নিয়ে মন্তব্য করতে চায়নি।

এনপিসিআইকে দেওয়া পেটিএমের চিঠিটি ভারতের ডিজিটাল পেমেন্ট মার্কেটে ক্রমবর্ধমান মারাত্মক প্রতিযোগিতার ইঙ্গিত দিয়েছে, যা ২০২৩ সালের মধ্যে আরও পাঁচগুণ বেড়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এই প্রতিযোগিতায় রয়েছে ফেসবুক থেকে হোয়াটসঅ্যাপও। কারণ এখন এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেও টাকা ট্রান্সফার করা সম্ভব।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ২০১৬ সালের নভেম্বরে নোট বন্দীকরণের সময় একচেটিয়া বাজার করেছে ভারতে পেটিএম। বর্তমানে প্রায় ৯৫ মিলিয়াম ইউজার রয়েছে পেটিএমে। অন্যদিকে গুগল পে ২২ মিলিয়ান। গুগল পে এর নতুন গোপনীয়তা নীতি বলেছে যে ইউপিআই লেনদেনের তথ্য শুধুমাত্র প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে নগদীকরণের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হবে।