ঘুমন্ত ব্যক্তিকে টেনে নিয়ে গেল চিতাবাঘ

0
132

রাতে দরজা বন্ধ না করার মাশুল দিতে হল এক ব্যক্তিকে। ঘরের দরজা বন্ধ না করলে চোর–ডাকাত ঢুকে পড়ার ভয় যেমন রয়েছে, তেমনি কিছু অনাগত অতিথিরাও বাড়িতে ঢুকতে পারে এটা চরম সত্য কথা।

নারায়ন রাম নামের ওই ব্যক্তি দিব্যি ঘুমোচ্ছিলেন নিজের ঘরে। তবে যা সত্য তাই ঘটলো। মাঝরাতে তাঁকে টেনে নিয়ে গেল সেরকমই এক অনাগত অতিথি। তবে অতিথিটি কোনো চোর-ডাকাত নয় অতিথি হচ্ছে এক চিতাবাঘ।

ভারতের উত্তরখণ্ডের আলমোড়াতে ৫১ বছরের ঘুমন্ত ওই নারায়ন রামকে বাড়ি থেকে টেনে নিয়ে যায় চিতাবাঘ। মঙ্গলবার তাঁর মরদেহ পাওয়া যায় বাড়ির ঝোপে।

নারায়ণ রাম রোববার নিজের বাড়ির দরজা বন্ধ না করেই ঘুমিয়ে পড়েন। রাতে গ্রাম সংলগ্ন জঙ্গল থেকে চিতাবাঘ এসে নারায়ণ রামকে ঘুমের মধ্যেই টেনে নিয়ে জঙ্গলের মধ্যে যায় বলে বন কর্মকর্তরা জানিয়েছেন।

সোমবার নারায়ণ রামের পরিবার তাঁকে বাড়িতে না পেয়ে পুলিশের কাছে নিখোঁজ দায়ের করে তার সন্ধানে আবেদন জানান। মঙ্গলবার সকালে নারায়ণের মরদেহ উদ্ধার করা হয় বাড়ির ৩০০ মিটার দূরের একটি জঙ্গলে।

সম্প্রতি এই এলাকায় চিতাবাঘের উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে। জঙ্গল থেকে বাঘগুলো জনবসতি এলাকায় বেরিয়ে এসেছে। প্রায়ই গ্রাম থেকে মুরগি–ছাগল নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে চিতাবাঘরা। এ বিষয়ে আতঙ্কিত গ্রামবাসী বনবিভাগের দারস্থ হয়েছে। গ্রামবাসী তাদের কাছে অভিযোগও জানিয়েছেন এই সংকট সমাধানের।

বনবিভাগ চিতাবাঘটিকে ধরার জন্য জঙ্গলের মধ্যে ফাঁদ পেতে রেখেছে। খুব শীঘ্রই চিতাবাঘকে ধরতে পারবে বলে মনে করছে বন কর্মকর্তারা। এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে মুরগি-ছাগলের মতো মানুষের জীবনও ঝুঁকিতে পড়েতে থাকবে।

এই ক্ষেত্রে নিজের জীবন সুরক্ষায় নিজেদের সতর্ক থাকতে হবে। জানা সত্বেও নিজের ঘরের দরজা খোলে রেখে ঘুমালে তো জীবন বাঘের শিকার হবেই।