ছিলো প্রাথমিক বিদ্যালয়, হয়েছে বিশাল পুকুর

0
145

কাইয়ুম হাসান : ১৯৯১ সালে যেখানে ছিল প্রাথমিক বিদ্যালয় সেখানে এখন বিশাল পুকুর। প্রভাব খাটিয়ে স্কুলের জমি দখল করে এখন হচ্ছে মাছ চাষ। ফলে সরকারি কোনো বিদ্যালয় না থাকায় শিক্ষা বঞ্চিতই থাকছে শিশুরা। অভিযোগ রয়েছে, স্কুলের জমি দখলে ভূমি অফিসের যোগসাজস রয়েছে।

গ্রামীণ জনপদে শিক্ষার আলো ছড়াতে প্রায় ৩ দশক আগে গড়ে তোলা হয় দড়ি ছাড়িয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়। এরপর ঠিকঠাক চলছিল ক্লাস-পরীক্ষাও।

কিন্তু প্রতিষ্ঠানটির অবকাঠামো দুর্বল থাকায় সে সময় ঝড়-বৃষ্টিতে হয়ে যায় লন্ডভন্ড। পরে দীর্ঘদিন আরও অবহেলায় পড়ে থেকে অস্তিত্বহীন হয়ে যায় বিদ্যালয়টি। পরবর্তীতে স্কুলটির জায়গার দিকে নজর পড়ে স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের।

স্কুলটির জায়গায় এখন বিশাল পুুকুর খনন করে দিব্বি মাছ চাষ করে যাচ্ছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি।
এ অবস্থায় স্কুলটির জমি উদ্ধারে জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেন স্থানীয়রা। এতে কাগজ পত্রে জমির অস্তিত্ব বেরিয়ে এলেও অদৃশ্য কারণে নেই কোনো অগ্রগতি।

দীর্ঘদিন এভাবে স্কুলটির জমি সুকৌশলে দখল করলেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও নেননি কোনো ব্যবস্থা।
স্কুলটি জমি উদ্ধারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চান স্থানীয়রা।