জাস্টিন ট্রুডোর আমন্ত্রণে ৭ জুন কানাডা যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

0
70

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর আমন্ত্রণে জি সেভেন সম্মেলনে যোগ দিতে ৭ জুন কানাডা যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিকালে নিজ মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে একথা জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

তিনি বলেন, কানাডার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনীকে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যপারে আলোচনা হবে।

কানাডার কুইবেকের লা মালবাইয়ে আগামী ৮ ও ৯ জুন ৪৪তম এই শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। জি-৭ এ রয়েছে- কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র। জানা গেছে, নারীর ক্ষমতায়ন ও উদ্বাস্তুদের আশ্রয় প্রদানের অবিস্মরণীয় পদক্ষেপ গ্রহণে সাহসিকতার কথা জানতে চায় জি-সেভেন সামিট।

এ জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশেষভাবে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে শীর্ষ ধনীদেশগুলোর বার্ষিক এই সম্মেলনে। এই সম্মেলনে শেখ হাসিনাকে বিশেষভাবে সম্মান জানানো হবে।

সম্মেলনের পর আগামী ১০ জুন কানাডার টরন্টো প্রবাসীরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নাগরিক সংবর্ধনা দেবেন। এ উপলক্ষে কানাডা আওয়ামী লীগ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত প্রবাসীরা নানা প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

সম্মিলিত উদ্যোগে সংবর্ধনা সমাবেশটি হবে ডাউন টাউন টরন্টোতে মেট্রো কনভেনশন সেন্টারে। টরন্টোর এই কর্মসূচিতে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, নিউইয়র্ক আওয়ামী লীগ, নিউ ইংল্যান্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও যোগ দেবেন বলে জানা গেছে।

জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের বিশেষ অধিবেশনে যেসব বিশ্বনেতা ও আন্তর্জাতিক সংস্থা প্রধানদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে তারা হলেন- জি ২০-এর চেয়ারপারসন ও আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট মাওরিসিও ম্যাক্রি, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, চেয়ার অব দ্য ক্যারাবিয়ান কমিউনিটি (সিএআরআইসিওএম) ও হাইতির প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মোইসে, জ্যামাইকার প্রেসিডেন্ট এন্ডু হোলনেস, কেনিয়ার প্রেসিডেন্ট উইরো কেনেয়াত্তা, মার্শাল আইল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট হিলদা হেইনি, নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী ইরনা সোলবার্গ, আফ্রিকান ইউনিয়নের চেয়ারপারসন ও রুয়ান্ডার প্রেসিডেন্ট পল কাগামে, সেনেগালের প্রেসিডেন্ট ম্যাকে সল, সিসিলির প্রেসিডেন্ট ড্যানি ফউরে, দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাপসে, ভিয়েতনামের প্রধানমন্ত্রী নেগুয়েন উয়ান পিহুক, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের মহাপরিচালক ক্রিস্টিন লাগারডে, অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের মহাসচিব জোস এঞ্জেল গোরিয়া, জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেস এবং বিশ্বব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রিস্টালিনা জিওরগিয়েভা।