জিমেইলে জায়গা বাড়াবেন যেভাবে

0
65

বিনামূল্যে ই-মেইল সেবা হিসেবে জিমেইল বিশ্বজুড়ে দারুন জনপ্রিয়। প্রতিযোগিতায় জিমেইলের ধারেকাছেও অন্য কোনো ই-মেইল সেবা নেই। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই জিমেইল ব্যবহার করতে গিয়ে আমরা যে সমস্যাটার সম্মুখীন হই তা হলো স্টোরেজ সমস্যা।

কারণ বিনামূল্যে সর্বোচ্চ ১৫ গিগাবাইট স্টোরেজ স্পেস ব্যবহার করা যায়। এটা শেষ হলে অতিরিক্ত স্টোরেজ পেতে আমাদের গুগলকে অর্থ প্রদান করতে হয়। তবে আপনি যদি একটু কৌশলী হন এবং জিমেইলের সীমিত স্টোরেজটিকে আরও কার্যকরভাবে পরিচালনা করতে পারেন, তবে এ সমস্যা থেকে অনেকাংশেই পরিত্রাণ পেতে পারেন।

জিমেইল স্টোরেজ পরিচালনার কার্যকরী ধাপগুলো নিচে তুলে ধরা হলো-

আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্টটি খুলুন। স্ট্ক্রল করে নিচের দিকে দেখুন আপনি কতটুকু স্টোরেজ ব্যবহার করেছেন। আর বিনামূল্যে কতটুকু ব্যবহার করতে পারবেন। ব্যবহূত স্টোরেজ ডাটার নিচের দিকে থাকা ‘ম্যানেজ অপশনটি নির্বাচন করুন।

এটি ক্লিক করার পরে আপনাকে ড্রাইভ স্টোরেজ নামক একটি পেজে নিয়ে যাওয়া হবে। এখানে আপনি কতটুকু স্টোরেজ ব্যবহার করেছেন এবং অতিরিক্ত স্টোরেজ কিনতে বিভিন্ন পরিকল্পনাগুলোর একটি পাই চার্ট দেখতে পাবেন। এবার পাই চার্টের নিচের ‘বিবরণ দেখুন’ অপশনটিতে ক্লিক করুন।

এখানে আপনি গুগল ড্রাইভ, জিমেইল এবং গুগল ফটোতে কী পরিমাণ স্টোরেজ ব্যবহার করেছেন তা আপনি দেখতে পাবেন। এবার ‘আরও জানুন’ অপশনটি নির্বাচন করুন। এটি আপনাকে গুগল ড্রাইভ সহায়তা নামক একটি পেজে নিয়ে যাবে।

এখানে আপনি আপনার স্টোরেজ পরিচালনা করতে পারেন- কীভাবে তার একটি নির্দেশাবলি পাবেন। আপনার ট্র্যাশে অনেক আইটেম থাকলে drive.google.com-এ যান। এরপর বাম দিকে ট্র্যাশ ক্লিক করুন, ‘ট্র্যাশ খালি করুন’-এ ক্লিক করুন যেন আপনি নিশ্চিত হতে পারেন আপনার ট্র্যাশ ফোল্ডারটিতে কোনো ফাইল নেই, যা আপনি পুনরুদ্ধার করতে চান।

‘গুগল ড্রাইভ হেল্প’-এর অধীনে ‘বিকল্প ১’ নামে একটি লিঙ্ক পাবেন, সেখানে যার মাধ্যমে আপনি আপনার জিমেইলের স্পেস খালি করতে পারবেন। ওই লিঙ্কে ক্লিক করলে দেখতে পাবেন আপনার ফাইলগুলোর মধ্যে কোন ফাইলগুলো সর্বাধিক স্থান দখল করে আছে।

তালিকাটি দেখে আপনি যে ফাইলগুলো আপনার ব্যবহারের জন্য নয়, তা নির্ধারণ করতে পারবেন এবং তাদের ডিলিট করতে পারবেন। যদি আপনার ফটোগুলো অনেক স্টোরেজ দখল করে থাকে, তাহলে গুগল ড্রাইভের সহায়তায় ‘ফটো স্টোরেজ সম্পর্কে আরও জানুন’ অপশনটিতে যান।

আপনাকে একটি নতুন পেজে নিয়ে যাওয়া হবে, যেখানে আপনার সংরক্ষিত চিত্রগুলো মানটিকে সামঞ্জস্য করতে একটি লিঙ্কগুলো থাকবে। জিমেইলের ট্র্যাশ এবং স্প্যাম ফোল্ডারগুলোও সাফ করুন এবং যে ই-মেইলগুলো গুরুত্বপূর্ণ নয় তা মুছে দিন।