খালেদা জিয়ার জামিন বাতিলের আদেশ দেয়া হবে আগামী ১৫ মে

0
100

শারমিন আজাদ :

আগামী ১৫ মে খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে আদেশ দেয়া হবে। বুধবার শুনানি শেষে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের বেঞ্চ এই দিন ঠিক করেন। শুনানির সময় খালেদা জিয়ার পক্ষে আইনজীবীরা তাদের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন। এসময় আপিল বিভাগে অ্যাটর্নি জেনারেল বক্তব্য দেন, জামিনের বিরোধিতা করে কথা বলেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খানও।

বুধবার খালেদা জিয়ার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, খন্দকার মাহবুব হোসেন, জয়নুল আবেদীন ও মওদুদ আহমদ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার জামিনের পক্ষে যুক্তিতর্ক তুলে ধরেন।

যুক্তিতর্কের পর দুদকের আইনজীবী তার বক্তব্যে জামিনের বিরোধিতা করেন। পরে কথা বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় টাকা কিভাবে এসেছিল, সেই টাকা নিয়ে কিভাবে দুর্নীতি হয়েছে এবং খালেদা জিয়াসহ অন্য আসামীরা কিভাবে অভিযুক্ত, বিচারিক আদালতের নথিপত্র থেকে এই তথ্য তুলে ধরতে থাকেন।

অ্যাটর্নি জেনারেলের কথা বলার সময় বার বার বাধা দেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। গত ১৯ মার্চ খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন ৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করেন আপিল বিভাগ।

দুই সপ্তাহের মধ্যে সরকার, দুদক ও আসামিপক্ষকে আপিলের সারসংক্ষেপ দাখিল করার নির্দেশ দেওয়া হয়। খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের লিভ টু আপিল গ্রহণ করে এই আদেশ দেন।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত।