জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ শাস্তির আবেদন দুদকের

0
112

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার বাদী পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ। আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তির আবেদন দুদক পক্ষের আইনজীবীর।

অপর দিকে আসামী পক্ষের যুক্তিতর্ক শুরু করে এ মামলা কোন ভিত্তি নেই, জিয়া পরিবারের সম্মান ক্ষুন্ন করার উদ্দেশ্যেই এই মামলা বলে দাবী করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী।

বকশি বাজার বিচারিক আদালতে এই মামলার কার্যক্রম শুরে হলো উভয় পক্ষের আইনজীবীরা এ সব কথা বলেন। বুধবার আসামী পক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের আদেশ রয়েছে আদালতের। বেলা বারটায় কঠোর নিরাপত্তায় রাজধানীর বকশিবাজার আলিয়া মাদ্রাসায় বিশেষ আদালতে হাজির হন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া।

আদালতের কার্যক্রম শুরু হলে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন দুদকের আইনজীবী মোশারফ হোসেন কাজল। এ সময় তিনি এই মামলার ৩২ জন স্বাক্ষীর উদ্বৃতি দিয়ে বলেন, খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে ক্ষমতার অপব্যবহার করে এই ট্রাস্ট গঠন করে ছিলেন, তাই এই ট্রাস্ট বৈধ নয়। যুক্তি উপস্থাপন শেষে, দুদক পক্ষ খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ শাস্তি দাবী করেন।

এর পর আসামী পক্ষের আইনজীবী যুক্তি উপস্থাপন করে এ মামলাকে খালেদা জিয়ার ইমেজ ক্ষুন্নের মামলা বলে আদালতকে জানান। দিনের কার্যক্রম শেষে চ্যারিটেবল মামলার বিষয় সাংবাদিকদের জানান খালেদা জিয়ার আইজীবী আমিনুল ইসলাম।

মামলার যৌক্তিকতা নিয়ে কথা বলেন দুদক আইনজীবী মোশারফ হোসেন কাজল। আদালতের আদেশ অনুযায়ী বুধবার আসামী পক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের দিন ধার্য রয়েছে।