জেলে সালমান খানকে দেখতে গেলেন প্রীতি জিনতা

0
136

অন্তত আরও একটা রাত জেলেই কাটাতে হচ্ছে বলিউডের ভাইজান খ্যাত সালমান খানকে। রাজস্থানের জোধপুর সেশনস কোর্টে শুক্রবার তাঁর জামিনের আবেদনটি উঠেছিল ঠিকই। কিন্তু ফয়সালা হয়নি।

সেশনস কোর্টের বিচারপতি জানিয়েছেন, কাল অর্থাৎ শনিবার সালমান খানের জামিনের আবেদনটি নিয়ে রায় জানানো হবে। এর আগে সবার ধারণা ছিল সালমান খান আজই জামিনে বের হতে পারবেন।

অতএব আজও সেই জোধপুর সেন্ট্রাল জেল। ২ নম্বর ব্যারাকের ২ নম্বর সেল। মুরগি-আটন ছাড়া যাঁর মুখে খাবার রোচে না, সেই সালমান খানকে আরও একটা দিন খেতে হবে জেলের সেই বাঁধা গতের খাবার।

তবে সালমানের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আজ জোধপুর সেন্ট্রাল জেলে ছুটে গিয়েছেন বলিউড সুপার স্টার প্রীতি জিনতা। বলিউডের ভাইজানের সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব দীর্ঘ দিনের। তবে সালমানের সঙ্গে প্রীতিকে দেখা করতে দেওয়া হয়েছে কিনা, তা এখনও জানা যায়নি।

কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় বলিউডের চার তারকা, সইফ আলি খান, তব্বু, সোনালি বেন্দ্রে এবং নীলম কোঠারি রেহাই পেয়ে গেছেন প্রমাণের অভাবে। ব্যতিক্রম সলমন খান। গতকাল তাঁকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার পরেই জোধপুর সেশনস কোর্টে জামিনের জন্য আবেদন করেছিলেন সলমনের আইনজীবীরা।

 

শুক্রবার সকালে জোধপুর সেশনস কোর্ট চত্বরে ভিড় উপচে পড়ার অবস্থা। ছিল বাড়তি নিরাপত্তাও। ৫১ পাতার জামিনের আবেদনে সলমনের পক্ষ থেকে তাঁর আইনজীবী হস্তিমল সারস্বত বলেন, এই মামলা সাজানোর জন্য সরকারি কৌঁসুলি ভুয়ো সাক্ষী দাঁড় করিয়েছেন। সালমানের জামিনের দাবি জানিয়ে তিনি সব মিলিয়ে মোট ৫৪ টি কারণ তুলে ধরেন। কিন্তু আদালত জানায়, বিষয়টি নিষ্পত্তি করা হবে আগামীকাল।

জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ফিল্ম স্টার হলেও সালমানকে বাড়তি কোনও সুবিধা দেওয়া হবে না। তাঁকে থাকতে হবে সাধারণ অপরাধীর মতোই। ধর্ষণে অভিযুক্ত ধর্মগুরু আসারাম বাপুর সঙ্গে জোধপুর সেন্ট্রাল জেলের একই ওয়ার্ডে রয়েছেন সালমান।

গতকাল রাতে তাঁকে খেতে দেওয়া হয়েছিল মোটা রুটি, ডাল এবং তরকারি। শুক্রবার সকালে দেওয়া হয় খিচুড়ি। কিন্তু বিলাসী জীবনে অভ্যস্ত ‘ভাইজান’ কিছুই মুখে তুলতে চাইছেন না।

অন্যদিকে মহেশ বোরা নামের এক আইনজীবীর দাবি করেছেন, সালমানের হয়ে মামলা লড়ায় তাঁকে গতকাল রাতে দুবাই এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে ফোন করে হুমকি দেওয়া হয়েছে। সালমানের জামিনের আবেদনটি কাল সকাল সাড়ে দশটায় ফের উঠবে জোধপুর সেশনস কোর্টে।

সেশনস কোর্টে জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গেলে, সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে রাজস্থান হাইকোর্টে যাওয়ার প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছেন সালমানের আইনজীবীরা।