ঝালকাঠিতে জরাজীর্ণ ও ঝুকিপূর্ণ ভবনে চলছে পাঠদান

0
114

বরকত হোসেন মৃধা : ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়টির ৫০ বছরের পুরোনো ও জরাজির্ন ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে পাঠদান। বর্তমানে ভবনটির ছাদের পলেস্তরা খসে পড়ছে এবং বৃষ্টি হলে পানি চুঁইয়ে পড়ে। এতে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা চরম আতঙ্কের মধ্যে পাঠদান চালালেও বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন।

তবে শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বিদ্যালয়টি পরিদর্শন করে দ্রুত সংস্কারের আশ্বাস দিয়েছেন।

১৯০৯ সালে স্থাপিত দ্বিতল ভবনের ঝালকাঠি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়। প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে এখানে। লেখাপড়ার দিক থেকে জেলা জুড়ে রয়েছে এর সুনাম। কিন্তু দীর্ঘদিনেও সংস্কার না হওয়ায় জরাজীর্ণ ভবনটি ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। গত দু’ বছর ধরে ভবনটির ছাদের পলেস্তার খসে পড়ছে। বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানি চুয়ে পড়ছে ক্লাস রুমে। এতে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখায় মনোযোগ দিতে পারছে না, শিক্ষকরাও রয়েছেন দুর্ঘটনার আতঙ্কে।

এছাড়াও বিদ্যালয়টিতে রয়েছে শিক্ষক সংকট। এ বিদ্যালয়ে প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থীর জন্য রয়েছে মাত্র ৩৫ জন শিক্ষক। শুন্য পদ রয়েছে ১৫টি। শিক্ষক স্বল্পতা দূর করার লক্ষে অধিদপ্তর থেকে নিয়োগের সার্কুলার হয়েছে বলে জানান ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক।

ভবন মেরামতে এরই মধ্যে শিক্ষাভবনে চাহিদা পাঠানো হয়েছে বলে জানান শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের এই কর্মকর্তা। ১০ তলা ভবন নির্মানের প্রকল্প প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।

বরিশাল শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী সমীর কুমার রজক দাস বলেন, শতবছরের ঐতিহ্যবাহী ঝালকাঠি সরকারি বিদ্যালয়ের দ্রুত সংস্কার ও নতুন ভবন নির্মানের প্রত্যাশা ঝালকাঠিবাসীর।