ডিভোর্স নিয়ে আইনি পথে নিক – প্রিয়াঙ্কা

0
354

বিয়ের ১১৭ দিনের মধ্যে ডিভোর্স! সম্প্রতি এমনই একটি প্রতিবেদন বের হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম শ্রেনীর ম‍্যাগাজিন ‘ওকে’ এক প্রতিবেদনে। নিক জোনাস এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার একে অপরের থেকে হতে চলেছে আলাদা এমনটাই দাবি করেছে ম‍্যাগাজিনটি।

শুধু তাই নয় তাদের কাছে এই খবর এসেছে এক ঘনিষ্ঠ সূত্র মাধ্যমে এমনটাই জানিয়েছিলেন তারা। এরপর থেকেই তীব্র জল্পনার সৃষ্টি হয় এই জুটিকে কেন্দ্র করে।

এমনকি নিককে বিয়ে করবে বলে সালমানের বিপরীতে অভিনয় করার কাজ ছেড়েছিলেন পিগি চপস। সেই বিয়ের রেশ কাটতে না কাটতেই এমন খবর প্রকাশ‍্যে আসায় বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে তোলপাড় শুরু হয়েছে বলিউড মহলে।

শুধু বিচ্ছেদের কথা বলেই থামেনি সেই ম‍্যাগাজিন কর্তৃপক্ষ। তারা জানান বিয়ের কয়েক মাসের মধ্যে সম্পর্ক একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে এই জুটির। এমনকি প্রিয়াঙ্কার লাইফস্টাইল নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে নিকের বাড়ির লোকেরা।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া সব সময় সমালোচনা ও ঝামেলা এড়িয়ে চলেন। গোটা বিষয়টি এই জুটির নজরে আসতেই তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন তারা। ইতিমধ্যে ওই ম‍্যাগাজিন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে চলেছেন নিক–প্রিয়াঙ্কা।

ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, সব কিছু নিয়েই নাকি ঝগড়া চলছে দম্পতির। কাজ, পার্টি ও সময় কাটানো নিয়ে চলছে লড়াই। তাড়াহুড়োর কারণেই দুজনেই বিবাহ সঙ্কটে।

জি নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রিয়াঙ্কা-নিকের জনসংযোগ কর্মকর্তাদের (পিআর) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এ ধরনের ভুয়া খবরে ভীষণই বিরক্ত তারকা দম্পতি। খুব শিগগিরই ‘ওকে’ ম্যাগাজিনের কাছে আইনি চিঠি পাঠাবেন তারা। এ ধরনের খবরে প্রিয়াঙ্কা-নিকের ইমেজ নষ্ট হয়েছে, তাই মানহানির জন্য মোটা অঙ্কের ক্ষতিপূরণও চাওয়া হতে পারে।

গত ২৭ মার্চ ‘ওকে’ ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, বিয়ের আগে বান্ধবী হিসেবে প্রিয়াঙ্কাকে বেশ সরল ও আধুনিক মনে হয়েছিল নিকের। কিন্তু বিয়ের পর থেকে তার উপরে নিয়ন্ত্রণ করা শুরু করেছেন প্রিয়াঙ্কা। এমনকি মাঝমধ্যে রেগেও যান বলিউড তারকা।

ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে আরও দাবি করা হয়, নিক জোনাসের পরিবারও প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে খুশি নয়। নিকের পরিবার ভেবেছিল, প্রিয়াঙ্কা বুদ্ধিমতি ও পরিণত নারী। বয়সে বড় হওয়ার কারণে সন্তান নিয়ে ঘর সংসার সামলাবেন তিনি। তবে এখনও ২১ বছরের তরুণীর মতো পার্টি করেন প্রিয়াঙ্কা। এমনকি নিক জোনাসের পরিবার নাকি মনে করে, তিনবার বিয়ের অনুষ্ঠান করে অযথা দুই মিলিয়ন মার্কিন ডলার নষ্ট হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, নিককে শুধুই টাকার জন্য বিয়ে করেছেন প্রিয়াঙ্কা। আর এ ধরনের মন্তব্যের কারণে প্রিয়াঙ্কার চরিত্রের ওপর দাগ লাগছে, তার ভালোবাসা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বলে মনে করছে অভিনেত্রীর পিআর। আর সে কারণে ‘ওকে’ ম্যাগাজিনের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে চলেছেন প্রিয়াঙ্কা-নিক।

এদিকে সম্প্রতি মিয়ামির সৈকতে নিক ও তার পুরো পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাতে দেখা গেছে প্রিয়াঙ্কাকে। এমনকি জোনাস ব্রাদার্সের কনসার্টেও দেখা গেছে তাকে। সব জায়গাতেই বেশ খোশ মেজাজেই ধরা দিয়েছেন এই তারকা জুটি।

প্রসঙ্গত, গতবছর রীতিমতো রাজকীয় ভাবে আয়োজিত হয়েছিল এই বিবাহ অনুষ্ঠান।