ডিসেম্বরের মধ্যেই হলি আর্টিজান মামলার অভিযোগপত্র

0
60

গুলশানের হলি আর্টিজান মামলার অভিযোগপত্র ডিসেম্বরের মধ্যেই দেওয়া সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

রোববার দুপুরে ঢাকায় পুলিশের গণমাধ্যম কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে হলি আর্টিজান হামলার তদন্ত এবং ব্লগার ও প্রকাশক হত্যা মামলার সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে কথা বলেন পুলিশের এ কর্মকর্তা।

তদন্ত শেষ পর্যায়ে চলে এসেছে জানিয়ে তিনি বলেন, হলি আর্টিজান মামলার অভিযোগপত্র এ মাসেই দাখিলের চেষ্টা করব। তদন্ত অনেক আগেই শেষ পর্যায়ে পৌঁছে গেলেও কিছু আসামী নিয়ে কনফিউশন ছিল।

যেমন বাশারুজ্জামান চকলেট, ছোট মিজান। এরা মামলায় সন্দেহভাজন হলেও পলাতক ছিল। চাঁপাইনবাবগঞ্জে কিছুদিন আগে এক অভিযানে নিহতদের চেহারার সঙ্গে চকলেট ও ছোট মিজানের মিল পাওয়া যায়। পরে ডিএনএ পরীক্ষায় সেটা মিলে যায়। তারা নিহত হয়েছে এটা এখন নিশ্চিত করে বলা যায়।

২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে কূটনীতিক পাড়া গুলিশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালিয়ে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। তাদের ঠেকাতে গিয়ে দুই পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হন।

ওই ঘটনায় গুলশান থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইন, হত্যাকাণ্ড ও তথ্য গোপনের অভিযোগে তিনটি মামলা করে পুলিশ। এরপর গত দেড় বছরেও পুলিশ তদন্ত শেষ করতে পারেনি।

গত জুলাইয়ে ওই হামলার বর্ষপূর্তির সময় তদন্তকারীরা বলেছিলেন, কয়েকজন সন্দেহভাজন জঙ্গি গ্রেপ্তার না হওয়ায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলার তদন্ত আটকে আছে। রোববার মনিরুলও একই কথা বলেন।

তদন্ত করতে গিয়ে ওই ঘটনায় যাদের জড়িত থাকার তথ্য পুলিশ পেয়েছে, তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন ধরা পড়েছেন এবং কয়েকজন নিহত হয়েছেন। গ্রেপ্তারদের কেউ কেউ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন। কিন্তু হাদিসুর রহমান সাগর নামে এক আসামি এখনও পলাতক বলে জানান মনিরুল।

মামলার তদন্তে আরও কয়েকজনের নাম এসেছে জানিয়ে তিনি বলেন, হামলার অর্থ যোগানদাতা হিসেবে আকরাম হোসেন নামে একজনের নাম এসেছে, যাকে খোঁজা হচ্ছে। গত ১৫ অগাস্ট পান্থপথে হোটেল ওলিওতে হামলার ঘটনাতেও পৃষ্ঠপোষক ও নির্দেশদাতা হিসেবে তার নাম পাওয়া গেছে।