থার্টি ফার্স্টের সকাল থেকেই উন্মক্তস্থানে সমাবেশ নিষিদ্ধ: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

0
94

নতুন বছর উদযাপকে ঘিরে ৩১ ডিসেম্বর সকাল থেকে সব ধরনের উন্মক্তস্থানে জনসমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সেই সাথে বৈধ অবৈধ সব ধরণের মাদক সেবন ও বিক্রিও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন শুটিং ক্লাবের উদ্বোধনকালে সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। অনুষ্ঠানে আইজিপি একেএম শহিদুল হকসহ উর্ধতন পুলিশ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাইরে কোনো অনুষ্ঠান উৎযাপন করা যাবে না। ঘরের ভেতরে বা হলে মধ্যে সীমাবদ্ধ থেকে নতুন বছর পালন করতে হবে।

এই বিষয়য়ে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, ‘আমরা গত ২৫ ডিসেম্বর খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের বড়দিন অত্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে উদযাপন করেছি। এসময় বাংলাদেশের কোনও জায়গায় কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। থার্টি ফার্স্ট নাইটেও আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী যথেষ্ট প্রস্তুত রয়েছে, যাতে কোনও ধরনের অরাজক পরিস্থিতি ও নাশকতা না হয়।’

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘থার্টি ফার্স্ট নাইটে নাশকতা এড়ানোর জন্যই আমরা কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করেছি। এরমধ্যে রয়েছে- সূর্যাস্তের পরে বাইরে কোনও অনুষ্ঠান করতে পারবে না। যারা করবে তারা ঘরে করবে।’

থার্টি ফার্স্ট নাইটে গুলশান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কিছু মানুষ খামোখাই হইচই করে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যাতে বাইরে কোনও জায়গায় কেউ একত্র না হতে পারে এবং গুলশান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় রাতে যাতে কেউ খামোখাই হইচই না করে, সে বিষয়েও আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। যাতে কোনও অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয়, সেজন্য আমরা বিধিনিষেধ আরোপ করেছি।’

প্রায় একদশক ধরে থার্টি ফার্স্ট নাইটের অনুষ্ঠান উন্মুক্ত স্থানে করতে দেওয়া হচ্ছে না। এ রকম আর কত বছর চলবে, জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মানুষের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করি। দেশের নাগরিকদের জানমালের কথা চিন্তা করি। সেজন্যই আমরা এসব বিধিনিষেধ আরোপ করি।’