দুর্ভোগের অন্ত নেই মানসিক হাসপাতালে

0
164

আবু সাঈদ অপু :

ওরা কখনো হাসে, আবার কখনো কাদে । আবার কখনো মনের খুশিতে গানও গায়। কেউ গায় বিরহের আবার কেউবা গাহে সুখের গান। এটি মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের চিত্র।

এই হাসপাতালটি শয্যার যোগফলে উন্নতি হলেও জনবল সংকটসহ রয়েছে রোগীদের খাদ্য সরবরাহ নিয়ে বিস্তর অভিযোগ। অপরিচ্ছন্ন পরিবেশতো রয়েছে ; তার উপর অব্যবস্থাপনা আর বর্হিবিভাগে আসা রোগীদের দুর্ভাগের অন্ত নেই।

রিপোর্টার: আবু সাঈদ অপু

মানসিক রোগীদের জন্য প্রকৃতির নির্মল পরিবেশের ব্যবস্থা তেমন না থাকলে ওষুধ নিয়ে রীতিমত সরকারি হাসপাতালের গাছে ঝুলছে বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানীর বিজ্ঞাপন।

একদিকে হাসপাতালের বেডে বসেই চলছে ধুমপান। আর ময়লা আবজর্না তো রয়েছেই। ক্যামেরা দেখার পর সক্রিয় হয়ে ওঠে পরিচ্ছন্ন কর্মীরা। তবুও অপরিচ্ছনতার প্রমাণ মেলে সব জায়গায়। প্রতিটি ওয়ার্ড ধুয়ে মুছে পরিস্কারের চেষ্টা চলতে থাকে। তবে এরই মাঝে ক্যামেরায় ধরা পরে নানা অসঙ্গতি।

এদিকে, মহাপরিচালকের সামনেই কথা হলো রোগীর স্বজনদের সাথে। রোগীর এক স্বজন জানান নার্সরা রোগী ও দর্শনার্থীদের সঙ্গে দুর্ব্যাবহার করেন। তবে নার্সরা অভিযোগের জবাবে জানান, দুর্ব্যবহার না করলে তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় না।

মানসিক হাসপাতালের দৃশ্য

অব্যবস্থপনার আরেকটি নমুনা ধরা পড়লো মাইটিভির ক্যামেরায়। দিনদুপুরে বাতি জ্বালিয়ে রাখা হয়েছে । আর বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের রয়েছে দৌড়ঝাপ ।

মানসিক প্রতিবন্ধীদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে হাসপাতালে দক্ষতা বৃদ্ধির ব্যবস্থা থাকলেও তার অবস্থা নাজুক।

অারো বিস্তারিত দেখুন নিচের ভিডিওটিতে: