দূর্যোগ ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে হিমশিম খাচ্ছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা

0
132

সাইদুর রহমান আবির:

অগ্নি প্রতিরোধ ও নির্বাপণ, সড়ক, নৌ ও রেল দূর্ঘটনাসহ যেকোন দূর্ঘটনার উদ্ধারকাজে অকুতোভয় সৈনিক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স। অতীতের চেয়ে আধুনিক সরঞ্জামাদি দিয়ে অনেকটাই ইতিবাচক পরিবর্তন করা হয়েছে এ বাহিনীকে।

অগ্রি নির্বাপণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা

তারপরও বাংলাদেশের দূর্যোগ এবং দূর্ঘটনা প্রতিরোধে হিমশিম খাচ্ছেন বাহিনীর কর্মীরা। প্রশিক্ষণ এবং আধুনিক বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে যন্ত্রপাতি ব্যবহার হচ্ছে এবং বাকিগুলোও শীঘ্রই সংযুক্ত হবে বলে জানান ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক। এ নিয়ে এবারের মাই সার্চ।

অগ্নিকাÐের ঘটনাসহ যেকোন প্রাকৃতিক দূর্যোগ এবং দূর্ঘটনা মোকাবেলায় সবার আগে এগিয়ে আসে দেশের ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্মীরা। দেখা যাক আধুনিক বিশ্বের কয়েকটি দেশের ফায়ার সার্ভিসের কার্যক্রম।

উন্নত যন্ত্রপাতি এবং বিভিন্ন কৌশলে কার্যক্রম পরিচালনা করার পাশাপাশি, আধুনিক বিশ্বের দেশগুলোর অন্যতম একটি বিষয় হচ্ছে অলিগলির মধ্যে অগ্নিকাÐের ঘটনা ঘটলে, পানির সংকট দেখা দিলে তার জন্য রয়েছে অগ্নি নির্বাপণের জন্য পানির বিশেষ লাইন।

রিপোর্টার: সাইদুর রহমান আবির

প্রতিনিয়ত অগ্নি নির্বাপণ করতে গিয়ে পানি সরবরাহ সমস্যার সম্মুখীণ হতে হয় ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের। উন্নত দেশগুলোর এই পদ্ধতি স্থাপন নির্বাপণ প্রক্রিয়া অনেকাংশে সহজ করা সম্ভব ছিল।

তবে বাংলাদেশের ফায়ার সাভির্সে অতীতের তুলনায় বর্তমানে আধুনিকতার অনেক ছাপ পরেছে। নিমজ্জিত ধোঁয়া দেখতে থার্মাল ইমেজিং ক্যামেরা, তালা কাটতে কম্বাইন্ড টুলস, সার্চ ভিশন ক্যামেরা, হাইড্রোলিক স্প্রেডার, হাইড্রোলিক কাটার ও হাইড্রেলিক র‌্যাম জ্যাক যুক্ত হয়েছে।

এছাড়াও রোটারি রেসকিউস, পাইপ স্কুইজার, চিপিং হ্যামার, রেসিং প্রেকেটিস এবং রোটার হ্যামার ড্রিল সংযুক্ত করা হয়েছে। আর এসব বিষয় নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন ফায়ার সার্ভিস মহাপরিচালক। ফায়ার সার্ভিসের ভবিষ্যত প্রস্তুতি নিয়েও নিজেদের অগ্রগতির কথা জানান তিনি।