দেশী গাছের অভাবে রাজধানী ছাড়ছে পাখিরা

0
174

রাজিব রহমান : পাখির কিচিরমিচির ডাক শুনে ঘুম ভাংতে কার না ভালো লাগে। বাসার বারান্দায় পাখির আনোগোনা থাকলে মনটা সতেজ থাকে প্রায় সব মানুষেরই। কিন্তু দিন দিন পাখি শুন্য হয়ে পড়ছে ঢাকা নগরী। পরিবেশবিদরা বলছেন পর্যাপ্ত গাছের অভাব এবং প্রতিকূল পরিবেশের কারণে নগর বিমুখ হয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি।

এক সময় পাখির ডাকেই ঘুম ভাঙ্গতো আমাদের। বিভিন্ন প্রজাতির পাখি দেখে প্রাণ জুড়াতো পাখি প্রেমীদের। শহরের মানুষদের কাছে এই কথা এখন প্রায় স্বপ্নের মতই।

রাজধানীর গুলশান-২ নাম্বারের গোল চত্ত্বরে তিনটি গাছে বাসা বেধে আছে কয়েক হাজার চরুই পাখি। সারাদিন বিভিন্ন জায়গায় খাবার সংগ্রহের পার সন্ধ্যা হলেই এরা ছুটে আসে নিজ গন্তব্যে।

এখানকার মানুষরা বলছেন, পর্যাপ্ত গাছের অভাবে পাখিগুলো থাকতে পারছেনা। যে পাখিগুলো রয়েছে সেগুলোর জন্য পর্যাপ্ত জায়গা নয় এই দুটি গাছ। আবার ঝড় বৃষ্টি হলেই মারা যায় অনেক পাখি।

নগরীতে পর্যাপ্ত গাছ না থাকায় পাখিরা বসবাসের স্থান পাচ্ছেনা বলে জানান নগরবীদরা।

প্রাণীবিদরা বলছেন, প্রতিকূল পরিবেশ এবং পাখি বসে এমন গাছের অভাবে শহর ছেড়ে চলে যাচ্ছে পাখিরা। তবে কর্তৃপক্ষের সদিচ্ছা এবং নগরবাসীর উদ্যোগে পাখিদের বসবাসযোগ্য স্থান হতে পারে এই নগরী।

পর্যাপ্ত গাছ এবং অনুকূল পরিবেশে পাখিদের বসবাস যোগ্য বাসস্থান হবে এই নগরী। সেই সাথে পাখির কলতানে ভাঙ্গবে সবার ঘুম। নগরবাসির কর্তৃপক্ষ এবং সাধারণ মানুষরা এগিয়ে আসবে পাখির নীরঝঞ্জাট আবাসস্থল তৈরিতে, এমনটাই প্রত্যাশা সবার।