মাহবুব সৈকত :

রাজধানীসহ দেশের কোথাও না কোথাও প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে ধর্ষনের ঘটনা। বিকৃত রুচির অমানুষদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত। সাম্প্রতিক সময়ে চলন্ত গণপরিবহনেও এ ধরনের ঘটনায় আতংকিত সাধারন মানুষ।

সামাজিক সচেতনতা এবং কঠোর আইন প্রয়োগের মাধ্যমে এক্ষুনি এই পৈচাশিকতার লাগাম টেনে ধরার পরামর্শ সমাজ কর্মীদের। তথ্য প্রযুক্তির অপব্যাবহার নিয়ন্ত্রনে কঠোর হবারও পরামর্শ তাদের।

প্রতিদিনই এ ধরণের খবর স্তম্ভিত করে দেয় আমাদেরকে। শিশু থেকে বৃদ্ধ, বিকৃত রুচির অমানুষদের যৌন লালসা থেকে রেহাই পাচ্ছে না কেউই। শ্রমিক এবং চালকদের দ্বারা চলন্ত গণপরিবহনে ধর্ষিত হচ্ছে যাত্রী। আতংকিত সবাই।

অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে সবার সোচ্চার হওয়ার প্রয়োজনীয়তাও কম নয় বলে মন্তব্য করেছেন উইমেন সাপোর্ট এন্ড ইনভেস্টিগেশন ডিভিশন, ডিএমপির অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার নুসরাত জাহান মুক্তা।

যদিও অনেক ক্ষেত্রেই প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপে অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করা যায়না বলে, বিচার নিয়ে শঙ্কা থাকে সবার মধ্যেই।

সংশ্লিষ্টদের অসহযোগিতায় অপরাধীদের পার পেয়ে যাওয়ার দু:সহ স্মৃতিও রয়েছে ভুক্তভোগীদের। যাদের অনেকেই রয়েছেন বেসরকারী বিভিন্ন সাপোর্ট সেন্টারে। আইন প্রয়োগের পাশাপাশি এই অবস্থা থেকে উত্তরনে সম্মিলিত প্রয়াসের কথা বলছেন সমাজ কর্মীরা।