নগরীর মোড়ে-মোড়ে চাঁদা দিতে হয় সিএনজি অটোরিক্সাকে

0
57

হাসান জাকির :

নাগরিক দুর্ভোগের আরেক নাম সিএনজি অটোরিক্সা। পার্কিংয়ের জন্য সুনির্দিষ্ট কোন স্ট্যান্ড না থাকায়, নগরীর মোড়ে-মোড়ে চলছে অটোরিক্সা কেন্দ্রীক চাঁদা আদায়। আর অতিরিক্ত এই টাকার মাসুল গুনতে হয় যাত্রীদের। যদিওবা পুলিশ বলছে ভিন্ন কথা।

সিএনজি চালক রমিজ উদ্দিন। বয়স প্রায় ৬০। বিমানবন্দর স্টেশনের কার পার্কিংয়ে চাতক পাখির মত তাঁকিয়ে আছেন যাত্রীর অপেক্ষোয়। কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি অভিযোগ করেন চাঁদাবাজির।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টা। রমিজ উদ্দিনের দেয়া অভিযোগের সত্যতা খুঁজতে মাইটিভির অনুসন্ধানী দল অবস্থান নেয় কমলাপুর এলাকায়। ক্যামেরায় উঠে আসে চাঁদা আদায়ের নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির চিত্র।

অতঃপর সাংবাদিকের উপস্থিতি টের পেয়ে দলিল দস্তাবেজ সহ হাজির হন নিয়ন্ত্রনকারীরা। প্রমাণ দেয়ার চেষ্টা করেন তাদের বৈধতা। শুধু কমলাপুরেই নয়, সিএনজি অটোরিক্সা কেন্দ্রীক চাঁদাবাজির নৈরাজ্যের অভিযোগ রয়েছে গোটা রাজধানীতেই।