নারায়ণগঞ্জের তিন এলাকা রেড জোন চিহ্নিত করে লকডাইন ঘোষণা

0
359

নারায়ণগঞ্জ জেলাকে আবারও ‘রেড জোন’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনটি এলাকাকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় এনে লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

রবিবার সকাল থেকে এই আদেশ কার্যকর করা শুরু হয়েছে এবং বিষয়টি মানুষকে জানাতে মাইকিং করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন।

দুপুরে জেলা প্রশাসক তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জানান, পরিস্থিতি বিবেচনা করে করোনার অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে শহরের আমলাপাড়া, জামতলা এবং ফতুল্লার ভূঁইগড়ের রূপায়ন টাউনকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে। এই তিনটি এলাকাকে ১৫ থেকে ২১ দিন পর্যন্ত পর্যবেক্ষণ করা হবে। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে পর্যায়ক্রমে অন্য ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোর ওপর এই বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে। লকডাউন ঘোষিত এলাকার কোনো ব্যক্তি বের হয়ে অন্য এলাকায় প্রবেশ করতে পারবেন না এবং অন্য এলাকা থেকেও কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

জেলা প্রশাসক আরও জানান, এসব এলাকায় গণপরিবহন চলাচলও বন্ধ থাকবে এবং কাঁচাবাজার বন্ধ রেখে ভ্রাম্যমাণ বাজারের ব্যবস্থা করা হবে। ধর্মীয় উপাসনালয়গুলোতে শুধু কর্মচারী ব্যতীত অন্যদের যাতায়াতে আপাতত নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তবে মানুষের খাবারের চাহিদা পূরণ করতে জেলা প্রশাসন থেকে খাদ্য সামগ্রী সরবরাহ করা হবে। পাশাপাশি মোবাইল ফোনের মাধ্যমে টেলিমেডিসিন সেবা প্রদানের কথাও জানান তিনি।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে জেলা প্রশাসক লকডাউন ঘোষণা করার পর তিনটি এলাকার সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ সেখানে গিয়ে লকডাউন কার্যকর করে।

জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, লকডাউন কার্যকর করতে পুলিশ সর্বোচ্চ কঠোর অবস্থানে থাকবে।