নাসিরনগরে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন ছায়েদুল হক

0
99

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী এডভোকেট ছায়দুল হকের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তৃতীয় জানাজা শেষে নিজ গ্রাম ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের পূর্ব ভাগে পারিবারিক কবর স্থানে মা-বাবার কবরের পাশে তাকে দাফন করা হয়।

মরহুমের মরদেহ দুপুরে হেলিকপ্টারযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর কলেজ মাঠে পৌছলে আইনমন্ত্রীসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা মরদেহ গ্রহণ করেন। পরে স্থানীয় আশতুষ পাইলট স্কুল মাঠে দ্বিতীয় জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাযায় আইন মন্ত্রী আনিসুল হক, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা প্রতিমন্ত্রী এবি তাজুল ইসলাম, সাবেক আইন মন্ত্রী আবদুল মতিন খসরুসহ নানা শ্রেণীর পেশার মানুষ অংশ নেন।

রোববার বেলা সাড়ে ১২টায় স্থানীয় আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়নে রাষ্ট্রীয় সালাম ও গার্ড অব অনার দেয়া হয়। এসময় বিউগলে বেজে ওঠে করুন সুর। লাল-সবুজের জাতীয় পতাকায় মুড়ে দেয়া হয় কফিন।

গার্ড অব অনার শেষে এ মাঠেই তাঁর দ্বিতীয় নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় প্রায় অর্ধলক্ষ মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এতে মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, জেলা ও জেলার বাইরে বিভিন্ন স্থান থেকে আত্মীয়-স্বজন, শুভকাঙ্ক্ষী ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের মানুষ জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।

জানাজা শেষে মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের প্রতি নাসিরনগরে আওয়ামী পরিবারসহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের নানা শ্রেণি পেশার মানুষসহ সর্বস্তরের নাগরিক ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান।

সর্বজন শ্রদ্ধেয়, সৎ মানুষ হিসেবে খ্যাত প্রয়াত মন্ত্রী ছায়েদুল হক সকলের ভালবাসা ও অশ্রু নয়নে চির বিদায় নিলেন। পরিবারের পক্ষ থেকে প্রয়াত মন্ত্রীর একমাত্র পুত্র ডাক্তার এ এস এম রায়হানুল হক জানাজায় অংশ নেয়া সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ও তাঁর পিতার আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া চান। জানাজায় অংশগ্রহণ ও মন্ত্রীর কফিনে পুস্পস্তবক দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যডভোকেট আনিসুল হক এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যডভোকেট আবদুল মতিন খসরু।

পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম.উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন অব. এবি তাজুল ইসলাম, সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃর্ধা, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের চট্রগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সফিকুল আলম, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা সৈয়দ একে একরামুজ্জামান, সাবেক উপ-মন্ত্রী অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার প্রমুখ।

জানাজা শেষে তাঁর জম্মস্থান উপজেলার পূর্বভাগ হাইস্কুল মাঠে বাদ জোহর তৃতীয় দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে পারিবারিক কবরস্থানে পিতা-মাতার কবরের পাশে তাঁকে দাফন করা হয়। সকাল সাড়ে ৯টায় মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায়।