পরাজয় দিয়ে কোপা আমেরিকায় যাত্রা শুরু হলো আর্জেন্টিনার

0
105

পরাজয় দিয়ে কোপা আমেরিকায় যাত্রা শুরু হলো আর্জেন্টিনার। আলবিসেলেস্তাদের ২-০ গোলে হারিয়ে বি’ গ্রুপে এগিয়ে গেল কলম্বিয়া। এদিকে, এ’গ্রুপের ম্যাচে ভেনিজুয়েলার সাথে গোলশুন্য ড্র করেছে পেরু।

লিওনেল মেসিরা এভাবে ফেল মেরে বসবে, এমনটা কল্পনাও করতে পারেনি কেউই। বিশ্বজুড়ে আর্জেন্টাইন ভক্তরা তো নয়ই। তবে সেটা কল্পনা করা যায়নি, ব্রাজিলের সালভাদরে সেটাই ঘটেছে। শিরোপা প্রত্যাশী আর্জেন্টিনার শুরুটা হয়েছে দুঃস্বপ্নের মতো। আজ ভোরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মেসির আর্জেন্টিনা ২-০ গোলে হেরে গেছে কলম্বিয়ার কাছে।

লজ্জার হারটা সেই কলম্বিয়া, যারা ইতিহাসে একবার মাত্র কোপা আমেরিকার শিরোপা জিতেছে। কলম্বিয়া একমাত্র সেই শিরোপাটাও জিতেছিল স্বাগতিক হিসেবে, ২০০১ সালে। টুর্নামেন্টের ১০৩ বছরের ইতিহাসে কলম্বিয়া ফাইনালেই খেলেছে ওই একবার। সেই কলম্বিয়ার কাছে ১৪ বারের শিরোপাজয়ী এবং সব মিলে ২৮ বারের ফাইনালিস্ট আর্জেন্টিনার হারটা লজ্জাজনকই।

হারটা আর্জেন্টাইনদের জন্য কত বড় হতাশার, মেসিদের শারীরিক ভাষাই বলে দিচ্ছিল সেটি। রেফারি ম্যাচের শেষের লম্বা বাঁশি বাজানোর সঙ্গে সঙ্গেই মেসিসহ আর্জেন্টাইনরা হতাশায় মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে মাঠ ছাড়েন মাথা নিচু করে।

সর্বশেষ দুটি কোপা আমেরিকারই ফাইনালে হেরেছে আর্জেন্টিনা। চিলির কাছে টানা দুবার শিরোপা স্বপ্ন গুঁড়িয়ে যাওয়ার হতাশা মুছে ফেলার লক্ষ্য নিয়েই এবার ব্রাজিলে পা রেখেছে আর্জেন্টিনা। কিন্তু শুরুতেই খেতে হলো বড় এক হোচট। ধাক্কাটা এত বড় যে, শিরোপার স্বপ্ন নিয়ে আসা আর্জেন্টাইনদের এখন গ্রুপপর্ব পেরোনো নিয়েই তৈরি হয়েছে শঙ্কা।

সালভাদরে দুই দলই শুরুটা করেছিল অত্যন্ত বাজেভাবে। প্রথমার্ধে দুই দলই খেলেছে শরীর নির্ভর ছন্দহীন খেলা। পায়ের কারুকার্র চেয়ে শরীরের লড়াইটাই চলেছে বেশি। ফল, একটু পরপরই রেফারিকে বাজাতে হয়েছে বাঁশি, পকেট থেকে বের করতে হয়েছে কার্ড। এই শরীরের ধাক্কাধাক্কির লড়াইয়ের ফাঁকে দুই দল বিক্ষিপ্ত কিছু সুযোগও পায় গোল করার। কিন্তু প্রথমার্ধে কোনো দলই সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি।