পরাজয় নিশ্চিত জেনেই খুলনা নির্বাচন নিয়ে রিজভী গুজব রটাচ্ছেন: নানক

0
64

পরাজয় নিশ্চিত জেনেই খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী গুজব রটাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছে আওয়ামী লীগ।

সকালে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে বিএনপির কোন অভিযোগের ভিত্তি নেই।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিবকে ‘নয়াপল্টনের স্থায়ী বাসিন্দা’ আখ্যা নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, বিএনপি নেতার চেষ্টা এই নির্বাচনকে বিতর্কিত করা।

নানক বলেন, ‘দেশের প্রিন্ট এবং ইলেকক্ট্রনিক মিডিয়া সকাল থেকে যে খবর পরিবেশন করছেন সেই তথ্য অনুসারে এবং আমাদের পাওয়া তথ্য অনুসারে…বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে নির্বাচনের কার্যক্রম চলছে। সেখানে শুরু থেকেই বিএনপি নামক দলটি মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।’

‘এক দিকে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য ভুরিভুরি অভিযোগ, আরেক দিক থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা- এটা ছিল স্ববিরোধী।’

নানক বলেন, ‘নয়াপল্টনের স্থায়ী বাসিন্দা রিজভী সাহেব আছেন, আজকে সকাল থেকেই এবং তার আগে থেকেই একই কায়দায় তিনি এই ভোট গ্রহণের ব্যাপারে তারা বিভিন্ন প্রশ্ন তুলছে এবং খুলনার এই অবাধ শান্তিপূর্ণ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য মিডিয়ার সামনে নানাবিধ গুজব রটাচ্ছেন।’

সকাল আটটা থেকে খুলনার ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রে ভোট শুরু হয়। নানক সংবাদ সম্মেলন করার আগ পর্যন্ত একটি কেন্দ্রে ভোট বাতিল এবং দুটি কেন্দ্র ও একটি বুথে স্থগিত হয়েছে জাল ভোট দেয়ার পর। আবার একটি কেন্দ্রের অদূরে বিএনপির ক্যাম্প ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিটি ঘটনাতেই নাম এসেছে ক্ষমতাসীন দলের সমর্থকদের। বাকি কেন্দ্রগুলো নিয়ে কোনো অভিযোগ আসেনি।

তবে বিএনপির অভিযোগ, খুলনাবাসী ভোট দিতে পারছে না। ঢাকায় সংবাদ সম্মেলন করে রুহুল কবির রিজভী ভোট ডাকাতির অভিযোগ এনেছেন। আর খুলনায় বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু অভিযোগ করেছেন ৩০টি কেন্দ্র থেকে তাদের এজেন্টকে বের করে দেয়ার।

অবশ্য রিটার্নিং কর্মকর্তা ইউনুচ আলী জানিয়েছেন, বিএনপির অভিযোগ ঢালাও এবং তদন্ত করে তারা সুনির্দিষ্ট তথ্য পাননি।

নানক বলেন, ‘যখন তারা (বিএনপি) ভরাডুবির সম্ভাবনা দেখেছিল তখন থেকেই তারা বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন তুলে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা চালিয়ে গেছে এবং এই মূহূর্তেও তারা সেটি অক্ষুন্ন রেখেছে।’

‘জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখাত হয়ে নির্বাচন ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপির এটি একটি ধারাবাহিক মিথ্যাচার এবং তাদের জন্মগত অভ্যাস বলেই আমরা মনে করি।’

‘আমরা মনে করি খুলনার জনগণ স্বাধীনভাবেই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট প্রয়োগ করছে। গণমাধ্যমই তার সবচেয়ে বড় সাক্ষী।’

খুলনার জনগণ বিপুল ভোটে নৌকা মার্কার প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেককে বিজয়ী করবে বলেও আশা করেন নানক।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।