পশ্চিম বঙ্গকে জঙ্গলের দেশ বলে মনে হয় : সোমনাথ চ্যাটার্জি

0
61

পশ্চিম বঙ্গে কোন গণতন্ত্র নেই। ওই রাজ্যকে জঙ্গলের দেশ বলেই মনে হয়- এই মন্তব্য করেছেন ভারতের লোকসভার সাবেক স্পীকার ও সিনিয়র সিপিআইএম নেতা সোমনাথ চ্যাটার্জি। আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজ্যজুড়ে চলা লাগামহীন সহিংসতা, বিরোধীদের মনোনয়ন জমা দিতে বাধা দেওয়াসহ যে অভিযোগ উঠেছে সেই প্রসঙ্গেই আজ বুধবার কলকাতায় গণমাধ্যমের প্রশ্নের উত্তরে তিনি একথা বলেন।

সোমনাথ বলেন, ক্ষমতার অপব্যাবহার করে কিভাবে তথাকথিত অধিকার অর্জন করতে হয় সেটা আমরা আগে দেখেছি, এখনও তাই হচ্ছে এবং সেটা খুব প্রকট ভাবেই হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গকে কি একটা গণতান্ত্রিক রাজ্য বলতে পারি এটা তো জঙ্গলের দেশ বলে মনে হয়। একজন নারীকে দেখলাম যে তাকে সটান তুলে নিয়ে আঁছড়ে ফেলল রাস্তায়। এটা অবিশাস্য ব্যাপার। মানুষের ন্যূনতম অধিকারকে জোর করে অগ্রাহ্য করা হচ্ছে’।
পুলিশের ভূমিকা নিয়েও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন তিনি। মানুষের পক্ষে না থাকলে রাজ্যের কি হবে তা ভেবেই শিউরে ওঠেন এই সিনিয়র বাম নেতা। সোমনাথ চ্যাটার্জি জানান ‘পশ্চিমবঙ্গের বুকে এই ধরনের কাজ করতে পারে, এমন ক্ষমতা কার আছে? আর সবচেয়ে বিপজ্জনক হয়েছে পুলিশের ভূমিকা। আলিপুরে যেখানে পঞ্চায়েত নির্বাচন সম্পর্কিত কাজ হচ্ছে সেখানে ১৪৪ ধারা জারির নামে গণমাধ্যমের কর্মীদের ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না অথচ হেলমেট বিহীন একাধিক মানুষ তারা মোটরবাইক নিয়ে ভিতরে প্রবেশ করছেন এবং একটা উদ্যেশ্য নিয়েই তারা ভিতরে প্রবেশ করছেন’। সোমনাথের প্রশ্ন ‘এরা কারা? পুলিশ কেন তাদের ভেতরে প্রবেশের অনুমতি দিল? এর তো একটা জবাব দিতে হবে? পুলিশই যদি আজকে মানুষের পক্ষে কাজ না করে তবে এই রাজ্যের কি হবে? এটা শুধু দুঃখের কথাই নয়, এটা অত্যন্ত বিপজ্জনক কথা। একটা মানুষ মারা গেল তিনি যে দলেরই হোন না কেন-এর চেয়ে দুঃখের কিছু আছে।

লোকসভার সাবেক স্পীকারের অভিমত ‘নির্বাচন একটা উৎসবের মতো। যার যেমন ক্ষমতা সেই দল তার মতো প্রচরাণা সারে। সবাই ভোট দেয়। কিন্তু এটা কি হচ্ছে? এটা কি রক্তের উৎসব হচ্ছে?’ তাঁর প্রশ্ন ‘আমার অধিকার কি আমি গায়ের জোর করবো, পুলিশকে কি কাজে লাগিয়ে করবো? ঠুঁটো জগন্নাথ বানিয়ে করবো?’