পিতৃহীন ২৫১ কন্য়ার বিয়ে দিলেন হীরা ব্যবসায়ী মহেশ সাভানি

0
125

ভারতের হীরা ব্যবসায়ী মহেশ সাভানি হিন্দু, খ্রিস্টান ও মুসলমান এমন ২৫১টি পিতৃহীন কন্যার বিয়ে দিয়েছেন। বেশ ঘটা করেই বিয়ে দিলেন তিনি । গুজরাটের সুরাটে এ ধরনের বিয়ের আয়োজন মহেশ প্রতিবছর করে থাকেন এবং যা শুরু হয় ২০১২ সাল থেকে।

গত রোববার এ ধরনের কন্যাদান বা গণবিবাহ অনুষ্ঠানে শত শত মানুষ আমন্ত্রিত হয়ে আসেন। এদের মধ্যে দুটি মেয়ের বিয়ে হয় যাদের এইচআইভি পজিটিভ রয়েছে।

মহেশ সাভানি বিশ্বাস করেন, এ ধরনের আয়োজন স্রস্টার আশীর্বাদ। এ বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রতিটি কনের পক্ষ থেকে মহেশ সাভানি স্বর্ণালঙ্কার, আসবাবপত্র, সোফা, বিছানাপত্র মিলিয়ে ৫ লাখ টাকার জিনিসপত্র বরকে দিয়েছেন। প্রতিবারই তা দেন।

সামাজিক দায়িত্ব থেকেই মহেশ সাভানি এ ধরনের বিয়ের আয়োজন করেন যাদের। যার যার ধর্ম অনুযায়ী বিয়ের সমস্ত আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয় এবং এ আয়োজন এক বিরাট মেলা বা উৎসবে পরিণত হয়।

ভারতে বিয়েতে কনে পক্ষ থেকে বর পক্ষ যৌতুক, নগদ অর্থ বা উপঢৌকন দাবি করে থাকে। এ কারণেও বিবাহযোগ্য অনেক মেয়ের বিয়ে দারিদ্রের কারণে দেওয়া সম্ভব হয় না। মহেশ সাভানি তাদের জন্যে অনেক বড় একজন অভিভাবক।

মহেশ বলেন, মেয়েদের পিতার দায়িত্ব আমি গ্রহণ করেছি। এ কাজে রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী সঞ্জয় মোভালিয়া আমাকে সাহায্য করেছেন। যে সব মেয়ের বাবা মারা গেছে বা খুবই দরিদ্র, এমন পরিবারের পক্ষে মেয়ের বিয়ে দেওয়া বেশ কঠিন।

২০০৮ সালে মহেশের এক কর্মচারি মেয়ের বিয়ের দিন কয়েক আগে মারা যাওয়ার পর তিনি এ ধরনের আয়োজন ছোট পরিসরে শুরু করলেও ক্রমেই তা উৎসবে পরিণত হচ্ছে।