ফেসবুক, টিকটক, ভিগো লাইভ, ফেইসঅ্যাপের আসক্তি গ্রাস করছে তার‌ুণ্যকে

0
1120

নাহিদ কামাল : বিশ্বজুড়ে স্মার্টফোন, কম্পিউটার বা ইন্টারনেটে আসক্তি এখন কোনো মিথ্যা নয়। সহজ সরল এক বাস্তবতা। তরুণ প্রজন্ম বিনোদনের অনুসঙ্গ খুঁজতে গিয়ে বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহারের পাশাপাশি জড়িয়ে পড়ছে নানান অশ্লীলতায়। মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মাদকাশক্তির চেয়েও ভয়ংকর এই ইন্টারনেট আসক্তি।

তথ্য প্রযুক্তির আধুনিকায়নে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তখনই এক ভয়াবহ নেশার আতংক গ্রাস করছে তরুণ প্রজন্মকে। মাদকের চেয়েও ভয়াবহ কোনো আসক্তি এই সমাজে আছে কিনা, সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে মাঠে নামে আলো আঁধারের গল্প টিম। অনুসন্ধানে উঠে আসে ফেসবুক, টিকটক, ভিগো লাইভ, ফেইসঅ্যাপ, ইউটিউবসহ সোশাল মিডিয়া আসক্তির এক ভিন্ন চিত্র।

গান কিংবা ব্যাঙ্গাত্মক মুখভঙ্গির সাথে ঠোঁট মিলিয়ে ১৫ সেকেন্ডের টিকটক ভিডিওর মাঝে কেউ কেউ বিনোদন খুঁজলেও এর ভয়াবহতার বলি হতে হয়েছে অনেককেই ।

অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্তদের প্লাটফর্ম হয়ে উঠেছে বিগো লাইভ। ভিন্ন জগতের ভিন্ন মানুষ গুলো এই অ্যাপসের মাধ্যমে জড়িয়ে পড়ছে নানান অশ্লীলতায়। সার্বিক এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় নানান পদক্ষেপের কথা জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী।

আইটি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসব অ্যাপস ব্যবহারে বাড়ছে নিরাপত্তা ঝুকি।  আর মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইন্টারনেট আসক্তির কারনে পারিবারিক ও সামাজিক বন্ধনও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দেশে নিরাপদ ইন্টারেট ব্যবহার নিশ্চিত করা না গেলে অচিরেই অন্ধকারে নিমজ্জিত হবে তরুণ প্রজন্ম এমন আশংকাই করছেন বিশেষজ্ঞরা।