বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি

0
89

দারিদ্রমুক্ত বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে সরকার রূপকল্প বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ।

রোববার সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদে দেওয়া ভাষণে রাষ্ট্রপতি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। জাতীয় সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের উদ্বোধনী ভাষনে তিনি এ কথা জানান। সরকারের উন্নয়ন চিত্রও তুলে ধরেন রাষ্ট্রপতি। এর আগে সংসদে শোক প্রস্তাবের উপর আলোচনায় অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংসদ সদস্যরা।

তিনি বলেছেন, গত মহাজোট সরকারের ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার দিনবদলের সনদ ‘রূপকল্প-২০২১’ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত একটি প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক ও অসাম্প্রদায়িক ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গড়ার লক্ষ্যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে সরকারের নিরবচ্ছিন্ন প্রচেষ্টা ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে।

বাংলাদেশ ইতোমধ্যে নিম্ন মধ্য-আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার কথা উল্লেখ করে হামিদ বলেন, এখন জাতির দৃষ্টি নিবদ্ধ হয়েছে ২০৪১ সালের দিকে-বিশ্বসভায় একটি উন্নত দেশের মর্যাদায় অভিষিক্ত হওয়ার মানসে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, সরকার উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রেখে জাতির আকাঙ্ক্ষা পূরণে সক্ষম হবে।

তিনি বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান সমুন্নত এবং সংসদীয় গণতন্ত্রের ধারা অব্যাহত রেখে ২০১৪ সালে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দশম জাতীয় সংসদ গঠিত হয় এবং বর্তমান সরকারের ওপর দেশ পরিচালনার গুরুদায়িত্ব অর্পিত হয়।

গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা ও দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে মত-পথের পার্থক্য ভুলে সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান আবদুল হামিদ।

তিনি বলেন, দেশ থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সম্পূর্ণরূপে নির্মূলের মাধ্যমে শোষণমুক্ত সমাজ-প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে বাঙালি জাতিকে আবারও ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। একাত্তরের শহীদদের নিকট আমাদের অপরিশোধ্য ঋণ রয়েছে।

আসুন ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে মত-পথের পার্থক্য ভুলে জাতির গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা ও দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার মধ্য দিয়ে আমরা লাখো শহীদের রক্তের ঋণ পরিশোধ করি।