বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলো শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত শিশু জায়ান চৌধুরী

0
216

সাইদুর রহমান আবির : বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি ঈদগাহ মাঠে জানাজা সম্পন্ন করে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি ৮ বছরের শিশু জায়ানকে। এর আগে দুপুর ১টায় শ্রীলঙ্কার একটি বিমানে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জায়ানের মরদেহ পৌছানোর পর নিয়ে আসা হয় নানা শেখ ফজলুল করিম সেলিমের বাসায়।

হামলায় নিহত নাতি জায়ানের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

৮ বছরের জায়ান। পরিবারের সাথে ঘুরতে গিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কায়। ফ্লাইট সিডিউল অনুযায়ী মঙ্গলবারে দেশে আসার কথা, একদিন পরে ঠিকই আসলো জায়ান, কিন্তু হাসিমাখা ফুটফুটে না, এতো তার নিথর দেহ।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরনের পর জায়ানের মরদেহ নিয়ে আসা হয় নানা আওয়ামী লীগ সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের বনানী বাসভবনে।

তখন নানার বাসভবনের শোকের ছায়া নেমে আসে পুরো এলাকায়। জায়ানের সকল আত্মীয় স্বজন, নানার রাজনৈতিক সহকর্মীদের ভীড় বনানী এলাকায়।মরদেহ বাসায় আসার ১ঘন্টা পরেই ছুটে আসেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

পূর্বনির্ধারিত ঘোষনা অনুযায়ী বাদ আসর নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।জানাজা শুরুর এক ঘন্টা আগেই বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি মাঠে ঢল নামে ঢল নামে সর্বস্তরের মানুষের।

জানাজা শুরুর আগে জায়ানের মুখখানা শেষবারের মত সবাইকে দেখানো হয়, কিন্তু জায়ানের শরীর ছিল বোমার আঘাতে ক্ষতবিক্ষত।

নাতির জন্য দোয়া চেয়ে পরিবেশকে আলো ভারী করে তুললেন নানা শেখ হফজলুল করিম সেলিম। শুরু হয় জানাযা,অংশ নেয় সর্বস্তরের মানুষের। জানাজা শেষে ফুল দেন বিভিন্ন সংগঠন। পরে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয় ৮ বছরের ছোট্ট শিশু জায়ানকে,ফিরবেনা জায়ান, জায়ানের মন কাড়ানো হাসি এবং কথাগুলো স্বজনদের কাছে এখন শুধুই স্মৃতি।