শারমিন আজাদ: বন্যার পর শীতের প্রকোপে কৃষি উৎপাদনে ঘাটতি জিডিপি প্রবৃদ্ধিকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলবে বলে আশংকা করছেন অর্থনীতিবিদরা।

সেই সাথে দেশে বিনিয়োগ না করে বিদেশে অর্থ পাচারও টালমাটাল করে দিতে পারে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, মনে করছেন তারা। প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে সরকারকে খাদ্য পরিস্থিতি ও বিনিয়োগে নজর দেয়ার আহবান তাদের।

গত বছর দুই দফা বন্যায় কমেছে কৃষি উৎপাদন। ঘাটতি কাটিয়ে উঠতে যে বোরো ছিল ভরসা, সেটাও বিঘ্নের আশঙ্কা, শীতের প্রকোপে।

জিডিপি প্রবৃদ্ধিতে কৃষি প্রবৃদ্ধি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

আর তাই ২০১৭-১৮ অর্থবছরের ৭ দশমিক ৪ শতাংশ জিডিপি অর্জন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে বলে আশংকা অর্থনীতিবিদদের। অবশ্য এরই মধ্যে আইএমএফ বলেছে, জিডিপি হবে ৭ শতাংশ।

অর্থনীতিবিদ ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ

তবে কাঙ্খিত জিডিপি অর্জনে খাদ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখার পরামর্শ দেশের অর্থনীতিবিদ ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদের।

খাদ্য পরিস্থিতির উপর খবর রাখতে হবে। বন্যার পর শীত বেশ পিছু টানবে প্রবৃদ্ধিকে।

 

 

জাতিসংঘের উর্ধ্বতন অর্থনীতিবিদ ড. নজরুল ইসলাম।

এদিকে বিনিয়োগকে জিডিপি প্রবৃদ্ধির আরেকটি বড় চালিকাশক্তি মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা। সেখানেও যথেষ্ট নজরদারির প্রত্যাশার তাগিদ দিয়েছেন জাতিসংঘের উর্ধ্বতন অর্থনীতিবিদ ড. নজরুল ইসলাম।

ব্যক্তি খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। বিনিয়োগ পাচার বিদেশে হচ্ছে কি না সরকারকে নজর রাখার তাগিদ দেন এই অর্থনীতিবিদ।

সার্বিকভাবে খাদ্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আমদানি করে হলেও মজুদ ঠিক রাখা প্রয়োজন বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।