বাজেটে নতুন সম্পূরক শুল্ক ও ভ্যাটের হার বাড়ানোয় বাড়তে পারে কিছু নিত্যপণ্যের দাম

0
127

মুবাল্লিগ করিম : অর্থমন্ত্রী হিসেবে প্রথমবারের মতো আ হ ম মুস্তফা কামালের দেয়া এ বাজেটে ভ্যাটের পরিধি যেমন ব্যাপক হারে বিস্তৃত করা হয়েছে, তেমনি নিত্য ব্যবহার্য কিছু পণ্যের ভ্যাট হারও বাড়ানো হয়েছে। ফলে এসব পণ্যের দাম বাড়তে পারে।

২০১৯-২০ অর্থবছরে বেশ কয়েকটি সেবাখাতের উপর মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে। যার ফলে এখন থেকে এসব পণ্য বা সেবা গ্রহণে আগের তুলনায় ব্যয় কমবে।

নতুন অর্থবছরের বাজেটে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর কারণে সব ধরনের সিগারেট, বিড়ি, জর্দা ও গুলের দাম বাড়তে পারে। একই কারণে বাড়তে পারে মোবাইল ফোনে কথা বলার খরচ। রড উৎপাদন ও বিপণনে ভ্যাট বাড়ানোর প্রস্তাব করায় বাড়ি নির্মাণে খরচ বাড়তে পারে।

উৎপাদন পর্যায়ে ট্যারিফ মূল্যের পরিবর্তে ৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আরোপ করায় এলপি গ্যাস, গুঁড়া দুধ, গুঁড়া মসলা, টমেটো কেচাপ, চাটনি, ফলের জুস, টয়লেট টিস্যু, টিউবলাইট, চশমার ফ্রেমের দাম বাড়তে পারে।

একই কারণে দাম বাড়তে পারে প্লাস্টিকের তৈরি গৃহস্থালি সামগ্রী, সিআর কয়েল, জিআই ওয়্যার, তারকাঁটা, স্ক্রু, অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি হাঁড়ি-পাতিল, থালা-বাসনসহ গৃহস্থালি সামগ্রী, ব্লেড, ট্রান্সফরমার, সানগ্লাস, রিডিং গ্লাসের।

স্বর্ণ ও রূপার জুয়েলারি, ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল, লঞ্চের এসি কেবিন, ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট, ইনডেনটিং, আসবাবপত্র, পরিবহন ঠিকাদার, তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সেবার ওপর ভ্যাট দেয়ার প্রস্তাব করায় এসব ক্ষেত্রে গ্রাহকদের খরচ বাড়তে পারে।

জামা-কাপড় কেনার পাশাপাশি তৈরি করতেও খরচ বাড়তে পারে। কারণ জামা-কাপড় তৈরির ওপর ১০ শতাংশ হারে ভ্যাট দিতে হবে।

যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাক, লরি, অ্যাম্বুলেন্স ও স্কুলবাস ছাড়া সব ধরনের পরিবহন রেজিস্ট্রেশন, রুট পারমিট নবায়ন, ফিটনেস সনদ, মালিকানা সনদ নিতে এবং নবায়ন করতে বিআরটিএ নির্ধারিত সেবামূল্যের ওপর সম্পূরক শুল্ক আরোপের কারণে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ফি বাড়তে পারে। চিনির দামও বাড়তে পারে।

বাজেটে পাউরুটি, হাতে তৈরি বিস্কুট ও কেকের উপর প্রতি কেজি ১৫০ টাকা মূল্যমান পর্যন্ত ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে। একইসাথে কৃষি যন্ত্রপাতি ও স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত কৃষিযন্ত্রপাতির উপর ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এবারের বাজেটে নারী উদ্যোক্তাদের দ্বারা পরিচালিত ব্যবসায়িক শোরুমের উপরও ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এছাড়া মোবাইল ফোনের যন্ত্রাংশ, অগ্নি নির্বাপণ যন্ত্রপাতি, ফ্রিজের আমদানিকৃত স্টিল প্লেট, ফ্যান, পানির পাম্প তৈরির রড, পোল্ট্রি ফিড ও ওষুধসহ অন্যান্য উপকরণ, ক্যান্সার প্রতিরোধক ওষুধ, নাইট্রোজেন, অক্সিজেন, কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাসের দাম কমতে পারে।