বান্দরবানে দুপক্ষের সংঘর্ষ; নিহত ৬

0
248

বান্দরবানের রাজবিলা ইউনিয়নের বাঘমারা বাজারপাড়ায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সন্তু গ্রুপ এবং এমএন লারমা গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ছয়জন নিহত এবং চারজন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার ভোরে এ সংঘর্ষ হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে গ্রামবাসী ও স্থানীয় বিশ্বস্ত সূত্র।

পুলিশ ও বাঘমারা বাজারপাড়াবাসী জানিয়েছেন, সকাল ৭টার দিকে জেলা সদর থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে জেএসএস-এমএন লারমা দলের জেলা সভাপতি রতন তঞ্চঙ্গ্যার বাড়িতে ১৪-১৫ জন দলীয় সদস্য জড়ো হন। তাঁরা কেউ রান্না করছিলেন, কেউ খাওয়া-দাওয়ার আয়োজনে ছিলেন। এমন অবস্থায় অতর্কিতে তাঁদের ওপর স্বয়ংক্রিয় অস্ত্রের গুলি ছোড়ে আক্রমণকারীরা। ১০-১৫ মিনিট গুলি ছোড়ার পর হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে জেএসএস-এমএন লারমা দলের জেলা সভাপতি রতন তঞ্চঙ্গ্যা (৫৫), বিমল কান্তি চাকমা ওরফে বিধু বাবু (৬০), প্রগতি চাকমা ওরফে প্রদীপ (৬৫), ডেভিড মারমা (৫৫), জয় ত্রিপুরা (৪০), জিতেন ত্রিপুরা (৪২) মারা যান।

ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় রাজবিলা ইউনিয়ন পরিষদের নারী সদস্য শৈএনু মারমার মেয়ে হ্লাওয়াংসিং মারমা (২৫), জেএসএস-এমএন লারমার দলের ক্যাডার খাগড়াছড়ির রামগড়ের বিদ্যুৎ চাকমা (৪০) ও দীঘিনালার নিহার চাকমাকে (৩৪) বান্দরবান হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

চিকিৎসকেরা নিহার চাকমা ও বিদ্যুৎ চাকমা নামে দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছেন।

বান্দরবানের পুলিশ সুপার জেরিন আখতার জানান, সকাল ৭টার দিকে ওই সংঘর্ষের খবর পেয়েছেন তাঁরা। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ছয়জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এক নারীসহ তিনজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

ঘটনাস্থল বাঘমারা নামক জায়গাটি বান্দরবান শহর থেকে বেশ কয়েক কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।