বাসভবন ভাংচুরে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি ঢাবি ভিসির

0
45

রোববার পুলিশের সাথে সংঘর্ষের পর সোমবার সকাল থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনে নামে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল শান্তিপূর্ণ হলেও দফায়-দফায় পুলিশের সাথে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এদিকে, ভিসি ভবন ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। রোববারের চিত্রের যাতে পূণারাবৃতি বা যে কোন অপ্রীতির ঘটনা এড়াতে সকালেই শাহবাগ ও টিএসসি চত্বরে অবস্থান নেয় র‌্যাব ও পুলিশ।

গেল ১৪ ফেব্রয়ারী সরকারি চাকুরির ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটা সংস্কার এবং মেধার ভিত্তিতে নিয়োগের ৫ দফা দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীর ব্যানারে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা।

হাজার-হাজার শিক্ষার্থীর একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে শাহবাগ ও টিএসসি চত্বরে অবস্থান নেয়ার পর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে শান্ত হন আন্দোলনকারীরা।

তাদের দাবি ৫৯ শতাংশ কোটা বাতিল করে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনার দাবি করে। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেয়া হয়।

এর পর দুপুর ১২ টা ৩০ মিনিটে শাহবাগে একটি মিছিল এসে জড়ো হয়। সেখানে ঘন্টা খানেক অবস্থানের পর তাদের ফিরিয়ে দেয়া হয়। এ সময় টিএসসি চত্বরে বেশ কয়েকটি মহরসাইকেল ভাংচুর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তবে শক্ত অবস্থানে রয়েছে পুলিশ।

একসময় ঘটনাস্থলে আসেন পুলিশের উদ্ধতন কর্মকর্তারা। সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে বাধাসহ হামলার শিকার হন বেসরকারি দুটি টেলিভিশনের সাংবাদিক ও ক্যামেরাম্যান। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তার বাস ভবনে হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সমস্যা সমাধানে পুলিশের হস্তক্ষেপে সচিবালয়ে আন্দোলনকারীদের সাথে বৈঠক করে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।