এস এম খোরশেদ আলম : অবৈধভাবে ভরাট করে কলকারখানা বানানো ও ময়লা আবর্জনা ফেলার ফলে প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে যাচ্ছে ঢাকার ঐতিহ্যবাহী বুড়ীগঙ্গা নদী। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ৫৬ ও ৫৭ নম্বর ওয়ার্ডের অধীনে অবস্থিত পুরো নদী এখন দুর্গন্ধময় ময়লা আবর্জনাও প্রভাবশালী দখলদারদের কবলে।

সরকার মাঝে মধ্যে পদক্ষেপ নিলেও উদ্ধার করতে পারছে না নদীটি। তাই বহুল পরিচিত নদী এখন পরিবেশ ও রোগজীবানু ছড়ানোর খালে পরিনত হয়েছে। আরো জানাচ্ছেন, এস এম খোরশেদ আলমের বিশেষ রিপোর্ট, ক্যামেরায় ছিলেন তরিকুল ইসলাম শিশির।

দখলদারদের কবলে বুড়ীগঙ্গা, একথা নতুন নয়। তবে রাজধানীর কামরাঙ্গীর চড়, রসুলবাগ ও হাজারী বাগ এলাকায় দখলদারদের দৌরাত্ম এমন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে যে, অনেকেরই শৈশবের স্মৃতি বিজরিত অবগাহন স্থল বুড়ীগঙ্গা বিলীন প্রায়।

মূল নদীর ওপরেই গড়ে উঠেছে বাড়ীঘর ও কলকারখানা। কিন্তু নদীকে বাঁচানোর সদিচ্ছা নেই কারো।
নদী রক্ষায় মাঝে-মধ্যে উদ্যোগ নেয়া হলেও মাঝপথেই তা থেমে যায়। দখলের পাশাপাশি ময়লা আবর্জনায় ভরা নদীতে মশা-মাছি বাড়ছে; ছড়াচ্ছে রোগ জীবাণু।

তবে আশার বাণী শোনালেন বিশেষজ্ঞ আইনজীবী মনজিল মোরশেদ । বললেন এটি রক্ষার আইনি খুব দ্রুতই শেষ হবে।